পিকুল ‘ঘোড়া’, কাজল ‘আনারস’

যশোর জেলা পরিষদ নির্বাচনে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ ৫০ জন প্রতীক বরাদ্দ পেলেন

এখন সময়: শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর , ২০২২ ০৩:০৩:২৩ am

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোর জেলা পরিষদ নির্বাচনে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ ৫০ জনের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এরমধ্যে চেয়ারম্যান পদে দু’জন, সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ১৪ ও সাধারণ সদস্য পদে ৩৪ প্রার্থী রয়েছেন। সোমবার সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত উৎসব মূখর পরিবেশে যশোর কালেক্টরেট সভাকক্ষে প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ দেন নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার জেলা প্রশাসক  তমিজুল ইসলাম খান। এসময় জেলা সিনিয়র নির্বাচন অফিসার আনিছুর রহমানসহ প্রার্থীরা উপস্থিত ছিলেন। এর আগে, যাচাই-বাছাই ও প্রার্থীদের প্রার্থীরা প্রত্যাহার শেষে ৪৯জন চূড়ান্ত প্রার্থীর তালিকা প্রকাশ করে নির্বাচন কমিশন। তবে, প্রতীক বরাদ্দের আগের দিন হাইকোর্টের রিট করে প্রার্থিতা ফিরে পেয়েছেন বাঘারপাড়া উপজেলা থেকে সদস্য প্রার্থী জয়নাল আবেদিন। তিনি ঋণখেলাপি ও হলফনামায় ত্রুটি থাকায় তার প্রার্থিতা বাতিল করে জেলা রিটার্নিং অফিসার।  তার বিষয়টি এখনো সুরাহা হয়নি।

চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী সাইফুজ্জামান পিকুল ‘ঘোড়া’ প্রতীক ও বিএলডিপি‘র কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মারুফ হাসান কাজল ’আনারস’ প্রতীক পেয়েছেন। সাধারণ সদস্য পদে ১ নম্বর ওয়ার্ড শার্শা উপজেলায় ২ জন শহিদুল আলম (টিউবওয়েল) এবং সালেহ আহমেদ মিন্টু (তালা), ২ নম্বর ওয়ার্ড ঝিকরগাছা উপজেলায় ৪ জন ইকবাল আহমেদ (বৈদ্যুতিক পাখা), রফিকুল ইসলাম (টিউবওয়েল), ইমামুল হাবিব (তালা) এবং সুরত আলী (হাতি), ৩ নম্বর ওয়ার্ড  চৌগাছা উপজেলায় ৪ জন আসাদুল ইসলাম (বৈদ্যুতিক পাখা), আহসান হাবিব (তালা), কামরুজ্জামান ( টিউবওয়েল) এবং তৌহিদুর রহমান (হাতি), ৪ নম্বর ওয়ার্ড অভয়নগর উপজেলায় ৬ জন এম এম আজিমুদ্দিন (অটোরিক্সা), জিএম মনিরুজ্জামান (বৈদ্যুতিক পাখা), প্রদীপ দে (টিউবওয়েল), ফারাজী অশিকুল ইসলাম বাধন (তালা), আব্দুর রউফ মোল্ল্যা (হাতি) এবং শেখ মাহবুব উর রহমান (ঘুড়ি), ৫ নম্বর ওয়ার্ড  বাঘারপাড়া উপজেলায় ৪ জন ইউনুস আলী (হাতি), রাকিব হাসান (তালা) এবং সাইফুজ্জামান  চৌধরী (টিউবওয়েল), ৬ নম্বর ওয়ার্ড সদর উপজেলায় ৫ জন জবেদ আলী (হাতি), রাকিবুল আলম রাকিব (তালা), সোহেল রানা (টিউবওয়েল),  শেখ আব্দুল মতলেব (বৈদ্যুতিক পাখা) এবং শেখ ইমামুল কবির (ঘুড়ি), ৭ নম্বর ওয়ার্ড মণিরামপুর উপজেলায় ২ জন গৌতম চক্রবর্তী (হাতি) এবং শহিদুল ইসলাম (টিউবওয়েল) ও ৮ নম্বর ওয়ার্ড কেশবপুর উপজেলায় ৭ জনকে প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়েছে তারা হলেন মহব্বত হোসেন (অটোরিক্সা), জাকির হোসেন (বৈদ্যুতক পাখা), নজরুল ইসলাম খান (ঘুড়ি), আজিজুল ইসলাম (হাতি), মাসুদুজ্জামান (উটপাখি), সাইদুর রহমান (টিউবওয়েল) এবং সোহরাব হোসেন (তালা)। এছাড়া সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে সংরক্ষিত ১ ওয়ার্ড সদর, বাঘারপাড়া ও অভয়নগর আসনে ৮জন এর মধ্যে বিলকিস সুলতানা সাথী (টেলিফোন), মরিয়ম বেগম (বই), হাজেরা পারভিন (দোয়াত কলম), নাসিমা সুলতানা (হরিন), রেহেনা খাতুন (লাটিম), রাখী ব্যানার্জী (টেবিল ঘড়ি), লায়লা খাতুন (মাইক) এবং সান ই সাকিলা আফরোজ (ফুটবল) সংরক্ষিত ২ ওয়ার্ড  মণিরামপুর, কেশবপুর আসনে ৩ জন তাসরিন সুলতানা (ফুটবল) নাদিরা বেগম (মাইক) ও রুখসানা ইয়াসমিন পান্না (দোয়াত কলম)  এবং সংরক্ষিত ৩ ওয়ার্ড  শার্শা, ঝিকরগাছা ও চৌগাছা উপজেলায় ৩ জন প্রার্থীকে প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। তারা হলেন নাসিম আরা চৌধুরী (দোয়াত কলম), শায়লা জেসমিন (মাইক)ও শাহানা আখতার (ফুটবল) । প্রতীক বরাদ্দ অনুষ্ঠানে নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার  তমিজুল ইসলাম খান, প্রার্থীদের নির্বাচনী আচরণ বিধি মেনে প্রচার-প্রচারণা করার অনুরোধ করেন। উল্লেখ্য, আগামী ১৭ অক্টোবর প্রথমবারের মতো জেলা পরিষদের নির্বাচন ইভিএমে অনুষ্ঠিত হবে। ৮টি উপজেলার মধ্যে ৭টি উপজেলা পরিষদে ভোট কেন্দ্র করা হয়েছে। শুধুমাত্র সদর উপজেলায় ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হবে যশোর সরকারি কালেক্টরেট স্কুলে। এক হাজার ৩১৯ ভোটার প্রার্থীদের ভাগ্য নির্ধারণ করবেন।