যশোর সিটি হসপিটালে সিজারে প্রসূতির মৃত্যুতে তদন্ত শুরু

এখন সময়: মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই , ২০২৪, ০২:০৬:৪৬ পিএম

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোর শহরের ঘোপ সেন্ট্রাল রোডের সিটি হসপিটালে সিজারের পর প্রসূতি কাজলের (২৬) মৃত্যুর ঘটনা তদন্তে কার্যক্রম শুরু হয়েছে। সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মীর আবু মাউদের নেতৃত্বে তিন সদস্যের টিম তদন্ত করেছে। আজ রোববার বেলা ১১টায় তদন্ত বোর্ড বসবে। সিটি হসপিটাল কর্তৃপক্ষ ও সিজার টিমের সদস্যদের নথিপত্র নিয়ে বোর্ডে হাজির হতে বলা হয়েছে।   

গত ২৪ জুন রাত ১০ টার দিকে সিটি হসপিটালে যশোর সদর উপজেলার ইছালী ইউনিয়নের এনায়েতপুর গ্রামের আব্দুল হাকিমের স্ত্রী কাজলকে সিজার করা হয়। অস্ত্রোপচার করেন ডা. ফারজানা পারভীন। অপারেশনের আগে ওই প্রসূতিকে অজ্ঞান করার দায়িত্বে ছিলেন অ্যানেসথেটিস্ট (অবেদনবিদ) ছিলেন ডা. আহসান কবির বাপ্পি।

সিজারের পর রোগীর অবস্থা সঙ্কটাপন্ন হলে তাকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে রেফার করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২৫ জুন ভোরে প্রসূতি কাজল মারা যান। এ ঘটনায় তার স্বজনেরা ক্ষুব্ধ হয়ে সিটি হসপিটালের সামনে বিক্ষোভ করেন। ২৬ জুন দৈনিক স্পন্দনে সংবাদ প্রকাশ হলে বিষয়টি আমলে নেয় স্বাস্থ্য বিভাগ। ওই দিন সিভিল সার্জন মাহমুদুল হাসানের নির্দেশে ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন হয়।

সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মীর আবু মাউদকে কমিটির সভাপতি করা হয়। বাকি দুই জন হলেন, অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের গাইনি কনসালটেন্ট ডা. শায়লা শারমিন তিথি ও সিভিল সার্জন অফিসের মেডিকেল অফিসার ডা. রেহেনেওয়াজ রনি।

ডা. মীর আবু মাউদ জানান, ঘটনাটি আন্তরিকতার সাথে তদন্ত শুরু করা হয়েছে। আজ রোববার বেলা ১১টায় অফিসকক্ষে তদন্ত বোর্ড বসবে। বোর্ডে সিটি হসপিটাল কর্তৃপক্ষ, সিজার টিমের সদস্য ও প্রসূতি কাজলের স্বামী আব্দুল হাকিমকে হাজির থাকাতে লিখিতভাবে জানানো হয়েছে। নির্ধারিত সময়ে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়া হবে।

যশোরের সিভিল সার্জন মাহমুদুল হাসান জানান, পাঁচ কর্মদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়ার জন্য কমিটিকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।