যশোরের সেই বিতর্কিত আনোয়ারুল কবীরসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি মামলা

এখন সময়: শুক্রবার, ১৪ জুন , ২০২৪, ০৫:১৫:৪২ এম

 

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোরে বহুল আলোচিত ও বির্তকিত আনোয়ারুল কবীর (৫২) ও তার ৯ সহযোগীর বিরুদ্ধে চাঁদা দাবি ও মানিহানির অভিযোগে আদালতে দায়ের পিটিশন কোতয়ালি থানায় মামলা হিসাবে রেকর্ড হয়েছে। যশোর জেলা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের সভাপতি পূর্ববারান্দী নাথপাড়ার বীরমুক্তিযোদ্ধা মোজাহার আলীর ছেলে কামরুজ্জামান (৩৭) মামলাটি করেছেন।

মামলার আসামি আনোয়ারুল কবীর যশোর শহরের স্টেডিয়াম পাড়ার মৃত এরশাদ আলী মন্ডলের ছেলে। অপর আসামিরা হলো, কাজীপাড়া কাঁঠালতলার মৃত লুৎফর রহমানের ছেলে কামরুজ্জামান রিপন (৫০), ঘোপ নওয়াপাড়া রোডের মৃত আনোয়ারুল ইসলাম মনার ছেলে আমিরুল ইসলাম অপু (৪৫), নতুন খয়েরতলা পালবাড়ির মোড়ের বাবলু মিয়া (৪৫), রেলগেট তেঁতুলতলা চোরমারা দিঘিরপাড় এলাকার মৃত শাহজাহান আলীর ছেলে শাহজাদা নেওয়াজ (৫০), মৃত নজরুল ইসলাম চৌধুরীর ছেলে হিরক চৌধুরী (৪৫), বাঘারপাড়ার প্রেমচারা গ্রামের আজিজ মন্ডলের ছেলে পারভেজ হিরা (৪০), চুড়ামনকাটি ছাতিয়ানতলা গ্রামের মৃত হযরত আলীর ছেলে হুমায়ুন কবীর উজ্জল (৪৫), কাজীপাড়া কাঁঠালতলার মৃত সানোয়ার মুন্সির ছেলে মামুন মুন্সী (৩৫) এবং চাঁচড়া রায়পাড়ার মৃত কাজী আইয়ুব হোসেনের ছেলে কাজী মেহেদী হাসান (৪৮)।

এজাহারে কামরুজ্জামান উল্লেখ করেছেন, তিনি মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে আসামিরা তার বিরুদ্ধে নানা ভাবে ষড়যন্ত্র করে আসছে। তার কাছে ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে তারা। চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় মিথ্যা বানোয়াট ও বিভ্রান্তিকর বক্তব্য প্রচার করার হুমকি দেয়।

গত ১০ মে তিনি জেল রোডে অবস্থান করার সময় আসামিরা তার কাছে যায় এবং চাঁদার দাবিতে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। আসামি আনোয়ারুল কবীর গত ২৬ মে তার ফেসবুক পেইজে তার নাম জড়িয়ে নানা বিভ্রান্তিকর তথ্য দেয়। তার পিতা রাজাকার ছিল বলে তথ্য প্রকাশ করে মানসম্মানের ক্ষতি করে। অন্য আসামিরা ওই পোস্ট তাদের ব্যক্তিগত ফেসবুক পেইজে শেয়ার করেন। এতে তিনি অসম্মানিত হয়েছেন বলে এজাহারে উল্লেখ করা হয়।