‘খোলা বাজারে ইফতারি বিক্রি করলেই ব্যবস্থা’

এখন সময়: মঙ্গলবার, ২১ মে , ২০২৪, ০৬:৩৯:৪৩ এম

 

দেবহাটা (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি : দেবহাটায় রমজানের পবিত্রতা রক্ষা ও নিয়মিত বাজার মনিটরিং এবং বিভিন্ন জাতীয় দিবস যথাযথ মর্যাদায় পালনের লক্ষে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার সকালে উপজেলা পরিষদের সভা কক্ষে এ প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আসাদুজ্জামানের সভাপতিত্বে ও সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুজিবর রহমান।

উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) দিপা রানী সরকার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনি, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান সবুজ, উপজেলা কৃষি অফিসার শরীফ মোহাম্মদ তিতুমীর, দেবহাটা থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই সেলিম রেজা, সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের আহবায়ক ও বাংলাদেশ বেতারের সাতক্ষীরা প্রতিনিধি ফারুক মাহাবুবুর রহমান প্রমুখ।

সভায় সিদ্ধান্ত হয়, খোলা বাজারে কেউ ইফতারি বিক্রি করলে ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালাবে। বাজার ও খাদ্যের মান নিয়ন্ত্রনে ভ্রাম্যমাণ আদালত সর্বদা তৎপর থাকবে। অসাধু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে তথ্য পেলে আইনগত ব্যবস্থা। সেহেরি, ইফতারি, তারাবি চলাকালিন সময়ে বিদ্যুৎ সরবরাহ অব্যাহত রাখতে পল্লী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ জানানো হয়। সেহেরীর পূর্বে দীর্ঘ সময় ধরে মাইক না বাজিয়ে নির্দিষ্ট সময়ে অন্য ধর্মের মানুষ, শিশু ও অসুস্থদের কথা মাথায় রেখে ধর্মীয় কর্মকান্ড পালনের সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়। পাশাপাশি অন্য ধর্মের অনুষ্ঠান পালন করতে গিয়ে মুসলিমদের কোনো সমস্যা সৃষ্টি না হয় সেদিকে খেয়াল রাখার জন্য বলা হয়। এছাড়া আগামী ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবসে সকাল সাড়ে ৯ টায় উপজেলা চত্বরে বঙ্গবন্ধু ম্যুরালে পুষ্পমাল্য অর্পণ, শিশু সমাবেশ, আলোচনা সভা, দোয়া মোনাজাতসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। একই সাথে ২৫ মার্চ গণহত্যা দিবস উপলক্ষে দোয়া অনুষ্ঠান ও রাত ১০ টায় সমগ্র উপজেলায় এক মিনিট বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ রেখে দিবসটি পালনের সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়। এছাড়া ২৬ মার্চ স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে পতাকা উত্তোলন, সকাল ৮ টায় বঙ্গবন্ধু মুর‌্যালে পুষ্পমাল্য অর্পণ, আলোচনা সভা, শিশুদের বিভিন্ন প্রতিযোগিতা, আলোক সজ্জা করা, বীর মুক্তিযোদ্ধাদের কবর জিয়ারত ও রুহের শান্তি কামনায় দোয়া, মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সম্মাননা প্রদান, পুরস্কার বিতরণসহ বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়নে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।