নির্বাচন নিয়ে করা মামলা খারিজ

যশোর চেম্বারের ভোটার তালিকা পুনরায় যাচাই করে নির্বাচন দ্রুত সম্পন্নের নির্দেশ

এখন সময়: বুধবার, ১ ফেব্রুয়ারি , ২০২৩ ০৯:৪১:৩৩ am

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোর চেম্বার অব কমার্সের নির্বাচন নিয়ে করা মামলাটি খারিজ করে দিয়েছে আদালত। একই সাথে আদেশে ভোটার তালিকা পুনরায় যাচাই করে এবং যদি কোন অসঙ্গতি থাকে সেটা দুর করে পুনরায় নালিশি নির্বাচন দ্রুত সম্পন্ন করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। রোববার সদর সহকারী জজ আদালতের ভারপ্রাপ্ত বিচারক সুজাতা আমিন এ আদেশ দিয়েছেন।

বুধবার অ্যাডভোকেট রফিকুল ইসলাম (৩) ও বিবাদী ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদের পক্ষে অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম এবং ব্যবসায়ী অধিকার পরিষদের পক্ষে নাসির আলম এ শুনানিতে অংশ নিয়েছিলেন।

আদালতের বেঞ্চ সহকারী শফিকুল ইসলাম মিঠু জানান, বুধবার বেলা ১১ টায় বিবাদী পক্ষের মামলা খারিজ আবেদনের উপর শুনানি অনুষ্ঠিত হয়েছিল। ঘন্টাব্যাপী শুনানিতে বাদী-বিবাদী পক্ষের আইনজীবী তাদের স্বপক্ষের যুক্তি তুলে ধরেছিলেন। আদালত বিচারক উভয় পক্ষের বক্তব্য শুনে রোববার ওই আদেশ দিয়েছেন।

গত ৭ জানুয়ারি যশোর চেম্বার অব কমার্সের নির্বাচন হওয়ার কথা ছিলো। গত ৪ জানুয়ারি জাল আয়কর সনদ দিয়ে ভোটার করানো হয়েছে এমন অভিযোগ এনে মেসার্স পারভেজ ট্রেডার্সের মালিক মেহেদী হাসান বাদী হয়ে যশোর সদর সহকারী জজ আদালতে একটি মামলা করেন। আদালতে বিচারক এ অভিযোগের শুনানি শেষে বিবাদীদের এক দিনের মধ্যে শো-কজ এবং আপত্তি দাখিলান্তে নিষেধাজ্ঞার শুনানি না হওয়া পর্যন্ত স্থিতিবস্থা বজায় রাখার আদেশ দেন।

এরপর এ মামলায় গত ৮ জানুয়ারি ব্যবসায়ী ঐক্য প্যানেলের ১৮ প্রার্থী বিবাদী হিসেবে অর্ন্তভূক্ত হন। পরে ব্যবসায়ী অধিকার পরিষদের ১৮ প্রার্থীও এ মামলার বিবাদী অর্ন্তভূক্ত হন। এদিন মামলা খারিজের আবেদনের উপর শুনানি শেষে বিচারক রোববার আদেশের দিন ধার্য করেছিলেন। গতকাল এক আদেশে বিচারক ১৯০৮ সালের আদেশ-৭ এবং রুল-১১ (ডি) অনুযায়ী অত্র মামলার আরজি খারিজ করে দিয়েছেন। নালিশি নির্বাচনের ভোটার তালিকার সঠিকতা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে, যশোর চেম্বার অব কমার্সের নির্বাচন গুরুত্বপূর্ণ ও জরুরি বিষয় হওয়ায় ভোটার তালিকা পুনরায় যাচাই করে এবং যদি কোন অসঙ্গতি থাকে সেটা দুর করে পুনরায় নালিশি নির্বাচন দ্রুত সম্পন্ন করার আদেশ দিয়েছে।

ব্যবসায়ী অধিকার পরিষদের কবু-মিজান-মিঠু প্যানেলের প্রধান এএসএম হুমায়ুন কবীর কবু জানিয়েছেন, ব্যবসায়ীদের স্বার্থ রক্ষায় আমার চেম্বারের নির্বাচন নিয়ে করা মামলায় বিবাদীভূক্ত হয়েছিলাম। আইনি লড়াইয়ের মাধ্যমে নির্ভুল ভোটার তালিকায় নির্বাচনের দাবি ছিল আমাদের। আদালতও সেই আদেশ দিয়েছে। গঠনতন্ত্রের আলোকে আমরা এখন দ্রুত নির্বাচন চাই।