কালীগঞ্জে অনৈতিক কাজ করতে গিয়ে ধরা

এখন সময়: সোমবার, ৩০ জানুয়ারি , ২০২৩ ০১:৩২:৪৫ am

কালীগঞ্জ (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি: কালীগঞ্জে জোর করে অনৈতিক কাজ করতে গিয়ে মিজানুর রহমান নামে স্বেচ্ছাসেবকলীগের নেতাকে গণপিটুনির পর পুলিশে সোপর্দ করেছে। উপজেলার আলাইপুর গ্রামের মকসেদ আলীর ছেলে মিজানুর রহমান ১ নম্বর সুন্দরপুর-দূর্গাপুর ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাবেক সভাপতি বলে জানা গেছে। সে দাস পাড়ার এক নারীর সাথে অনৈতিক কাজ করতে গিয়ে স্থানীয়দের কাছে ধরা পড়ে। এ সময় তাকে তারা উলঙ্গ অবস্থায় গাছের সাথে বেঁধে রাখে। খবর পেয়ে রাতেই পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। ঘটনাটি ঘটেছে রোববার রাত সাড়ে ১১ টার দিকে উপজেলার আলাইপুর গ্রামের দাসপাড়ায়। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী ওই নারী রাতে বাদী হয়ে কালীগঞ্জ থানাতে একটি মামলা দায়ের করেছেন।

স্থানীয়রা জানায়, আলাইপুর গ্রামের আলুকদিয়াপাড়ার মিজানুর দাসপাড়ায় এসে প্রায় তাদের উপর নির্যাতন করত। রোববার রাত সাড়ে ১১ টার দিকে গ্রামের দাশ পাড়ার একজনের বাড়িতে যায় মিজানুর। সেখানে এক নারীর সাথে জোর পূর্বক অনৈতিক কাজ করতে যায়। এসময় স্থানীয়রা টের পেয়ে তাকে মারধর করতে থাকে এবং তাদের চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে মিজানুরকে ধরে ফেলে। এরপর তাকে দড়ি দিয়ে গাছের সঙ্গে বেঁধে রাখে। পরে পুলিশকে খবর দিলে মিজানুর রহমানকে থানায় নিয়ে যায়।   

ভুক্তভোগী ওই নারী জানান, মিজানুর জোরপূর্বক তার সাথে অনৈতিক কাজ করতে চেয়েছিল। কথা বললে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। এ সময় তার স্বামী মিজানুর রহমানকে ধরে ফেলে এবং স্থানীয়রা এসে উলঙ্গ করে গাছের সাথে বাধে।

ভুক্তভোগী ওই নারীর স্বামী ঘটনার বিচার দাবি করে বলেন, এর আগেও মিজানুর তাদের উপর নির্যাতন করেছে। মিজানুর রহমানের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন।

ইউপি সদস্য মোন্তাজ আলী জানান, রাতে এক হিন্দু পরিবারের বাড়িতে গিয়ে ধরা পড়ে মিজানুর। তিনি যাওয়ার আগেই পুলিশ তাকে নিয়ে যায়।

কালীগঞ্জ থানার অফিসার্স ইনচার্জ আব্দুর রহিম মোল্লা জানান, আটক মিজানুর রহমানকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের হয়েছে।