যবিপ্রবির পিটিআর বিভাগের নবীন বরণ

বেসিক কোর্সকে অবহেলা করা যাবে না : উপাচার্য

এখন সময়: রবিবার, ১৯ মে , ২০২৪, ০৭:৩১:৪৩ পিএম

 

প্রেসবিজ্ঞপ্তি : যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ার হোসেন বলেছেন, অনেক সময় শিক্ষার্থীরা বেসিক কোর্সগুলোকে গুরুত্ব না দিয়ে তারা যখন কর্মজীবনে প্রবেশ করে, তখন ভালো সেবা দিতে পারে না। এজন্য সকলকে বেসিক কোর্সগুলোকে অবহেলা না করে, ভালোভাবে পড়তে হবে। 

মঙ্গলবার বিকেলে যবিপ্রবির বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব একাডেমিক ভবনের গ্যালারিতে বিশ্ব ফিজিওথেরাপি দিবস ও নবীন বরণ উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিজিওথেরাপি অ্যান্ড রিহ্যাবিলিটেশন (পিটিআর) বিভাগ আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ার হোসেন এসব কথা বলেন। এর আগে ডা. এম আর খান মেডিকেল সেন্টারে পিটিআর বিভাগের বেশ কয়েকটি ল্যাব উদ্বোধন করেন তিনি। নবীন বরণের শুরুতে নবীন শিক্ষার্থীদের অ্যাপ্রোন তুলে দেওয়া হয়। পরবর্তীতে তাদের শপথ পাঠ করানো হয়।   

র‌্যাগিংয়ের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নিয়ে অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, র‌্যাগিংয়ের মতো অসভ্যতা এ বিশ্ববিদ্যালয়ে চলবে না। এরকম অসভ্যতার সংস্কৃতি যেন তোমাদের মাঝে গড়ে না ওঠে, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। নবীন শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, রাজনীতির নামে যারা অপরাজনীতি করে তাদের বিরুদ্ধে দাঁড়াবে। এটা যুবকদের আলোকিত মানুষ হতে দূরে ঠেলে দিচ্ছে। যারা রাজনীতি করবে, তারা রাজনীতি করে দেশের জন্য কাজ করবে। আর যারা অন্য দায়িত্বে আছে, তারা তাদের দায়িত্ব পালন করে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। সবাই একে অপরের পরিপূরক হবে।  

পিটিআর বিভাগের চেয়ারম্যান ড. অভিনু কিবরিয়া ইসলামের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য দেন যবিপ্রবির ডিনস কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. মো. ইকবাল কবীর জাহিদ, সিরআপির নির্বাহী পরিচালক ডা. মো. সোহরাব হোসেন, পিটিআর বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. ফিরোজ কবীর, ডা. মো. জাহিদ হোসেন, ডা. শর্মিলা জাহান প্রমুখ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন পিটিআর বিভাগের প্রভাষক ডা. কাজী এমরান হোসেন। আলোচনা সভায় পিটিআর বিভাগ কর্তৃক প্রথমবারের মতো ফিজিওথেরাপি অলিম্পিয়াডে বিজয়ীদের মধ্যে সম্মাননা স্মারক ও সনদ তুলে দেওয়া হয়। আলোচনা সভা শেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।