যশোরসহ বিভিন্ন স্থানে মহান স্বাধীনতা দিবস উদযাপিত

এখন সময়: মঙ্গলবার, ২৫ জুন , ২০২৪, ০৩:০৪:৩৬ এম

 

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোরসহ বিভিন্ন স্থানে যথাযোগ্য মর্যাদায় নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপিত হয়েছে। দিবসটি উদ্যাপন উপলক্ষে গত রোববার প্রশাসনের পক্ষ থেকে বীরমুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যদের সংবর্ধনা দেয়া হয়। এছাড়াও এদিন অন্যান্য আরো অনেক কর্মসূচি পালিত হয়েছে।

যশোর

রোববার দুপুরে শহরের ঐতিহাসিক টাউন হল ময়দানের স্বাধীনতা উন্মুক্ত মঞ্চে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক নেতৃত্ব এবং দেশের উন্নয়ন শীর্ষক আলোচনা সভা হয়। এসময় প্রধান অতিথি যশোর সদর আসনের সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহমেদ বলেন, দেশ স্বাধীন হলেও এখনো শত্রুমুক্ত হয়নি। এ দেশে এখনো পাকিস্তানি দোসররা ঘাপটি মেরে রয়েছে। আগামী নির্বাচনের আগে তারা আস্তে আস্তে সক্রিয় হচ্ছে। তাদের লক্ষ্য দেশের সকল অর্জন নষ্ট করা।  বাংলাদেশের স্বার্থে, এদেশের মানুষের স্বার্থে বীরমুক্তিযোদ্ধারা আগামী নির্বাচনেও শেখ হাসিনার পক্ষে ঝাঁপিয়ে পড়বে। যারা দেশকে ভালোবাসে না, যারা দেশকে পাকিস্তান বানাতে চায়, তারাই বার বার স্বাধীনতার মাসকে কলঙ্কিত করতে চায়। মুক্তিযোদ্ধাদের সঙ্গে নিয়ে সব অপশক্তি রুখে দিবে আওয়ামী লীগ। জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়াদার, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা শহিদুল ইসলাম মিলন ও  যশোর পৌর সভার মেয়র বীরমুক্তিযোদ্ধা হায়দার গণি খান পলাশ। বক্তব্য রাখেন মুক্তিযুদ্ধকালীন বৃহত্তর যশোরের মুজিব বাহিনীর প্রধান আলী হোসেন মনি, উপপ্রধান রবিউল আলম, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার এএইচএম মুযহারুল ইসলাম মন্টু, আইডিইবি যশোরের সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসেন ও সাবেক ডেপুটি কমান্ডার নজরুল ইসলাম মন্টু চাকলাদার।

এর আগে মঞ্চে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের উদ্যোগে পরিবেশতি হয় স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের কালজয়ীসব গান। এদিন সকাল ৮টায় পুরাতন বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন বিজয় স্তম্ভে জেলা প্রশাসনসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংগঠনের পক্ষথেকে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করা হয়। এসময় পুস্পার্ঘ্য অর্পণ করেন জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান, পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়ারদার, যশোর সদর আসনের সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহমেদ, জেলা পরিষদের পক্ষে সাইফুজ্জামান পিকুল, সিভিল সার্জন অফিসের পক্ষে ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. নাজমুস সাদিক রাসেল, জেলা আওয়ামী লীগের পক্ষে সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের পক্ষে সভাপতি মোহিত কুমার নাথ, শহর আওয়ামী লীগের পক্ষে সভাপতি অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামান আসাদ ও সাধারণ সম্পাদক এস এম মাহমুদ হাসান বিপু, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মোস্তফা ফরিদ আহমেদ চৌধুরী, যশোর পৌরসভার মেয়র বীরমুক্তিযোদ্ধা হায়দার গণী খান পলাশ, সদর উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জোৎস্না আরা মিলি, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, যশোর  মেডিকেল কলেজ, মেডিকেল কলেজ শাখা  ছাত্রলীগ, শিক্ষক সমিতি, জেলা যুবলীগ, জেলা ছাত্রলীগ, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ,  জেলা যুব মহিলা লীগ, জেলা কৃষক লীগ, প্রেসক্লাব যশোর, যশোর সাংবাদিক ইউনিয়ন, দৈনিক স্পন্দন, মুক্তিযোদ্ধা সংহতি পরিষদ, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড, বিএনপির খুলনা বিভাগীয় ভারপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক অনিন্দ্য ইসলাম অমিত, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদের কেন্দ্রীয় কার্যকরী সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা রবিউল আলম, যশোর সরকারি এমএম কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর মর্জিনা আক্তার, যশোর সরকারি মহিলা কলেজের পক্ষে অধ্যক্ষ প্রফেসর অমল কুমার বিশ্বাস, যশোর সরকারি সিটি কলেজের পক্ষে অধ্যক্ষ প্রফেসর জামশেদ আলী সরদার, যশোর শিক্ষা বোর্ড স্কুল এন্ড কলেজ, ডা. আব্দুর রাজ্জক মিউনিসিপ্যাল কলেজ, তালবাড়িয়া ডিগ্রি কলেজ , হামিদপুর আল হেরা ডিগ্রি কলেজ, বিএমএ যশোর, স্বাচিপ যশোর, সহকারী পুলিশ সুপার হাইওয়ে সার্কেল, যশোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১, বিএডিসি পরিবার যশোর, বিএডিসি শ্রমিক কর্মচারী লীগ, মৃত্তিকা সম্পদ উন্নয়ন ইনস্টিটিউট যশোর, জেলা শিল্পকলা একাডেমি, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক  জোট,  পরিবেশ অধিদপ্তর যশোর, তুলা উন্নয়ন বোর্ড যশোর, বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন বোর্ড যশোর, বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় আঞ্চলিক কেন্দ্র যশোর, টিএমএসএস যশোর, এনজিও ফেডারেশন যশোর, বাংলাদেশ ইঞ্জিনিয়ারিং শিল্পী সমিতি, ডাক বিভাগ যশোর, বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ যশোর, বাংলাদেশ হাউজ বিল্ডিং ফাইন্যান্স যশোর , সড়ক বিভাগ যশোর, জাগরণী চক্র যশোর, ভোরের সাথী, শিক্ষা প্রকৌশলী অধিদপ্তর, উপশহর কলেজ, বিসিএমসি কলেজ যশোর, যশোর কলেজ, বাংলাদেশ ডেভলপমেন্ট ব্যাংক যশোর, টিটিসি যশোর, পানি উন্নয়ন বোর্ড যশোর, অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেড যশোর, কৃষি বিপণন অধিদপ্তর যশোর, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর যশোর, বিসিক যশোর, কৃষি ব্যাংক যশোর, বিটিসিএল যশোর, জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক অধিদপ্তর, শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়ন, আইডিইবি যশোর, সুরবিতান সংগীত একাডেমি যশোর, ফেলোয়ার মিলস শ্রমিক ইউনিয়ন যশোর, জেলা পরিসংখ্যান অফিস, যশোর বিমানবন্দর, জাগপা যশোর, পিটিআই যশোর, বিপিএমপিএ যশোর শাখা, বিটিসি যশোর, জনতা ব্যাংক যশোর, স্বাধীনতা ব্যাংকার্স পরিষদ যশোর, এস এম সুলতান ফাইন আর্ট কলেজ, বাঁচতে শেখা যশোর, বিআরটিসি যশোর, জেলা হিন্দু মহাজোট প্রমুখ।

চৌগাছা

সকাল ৬টা ৩০ মিনিটে শহিদ মশিউর নগর স্মৃতিসৌধ, সকাল ৭টায় মহান স্বাধীনতার যুদ্ধক্ষেত্র উপজেলার জগন্নাথপুরে মুক্তিনগর স্মৃতিসৌধ, সকাল ৭টা ৩০ মিনিটে চৌগাছার মুক্তিযুদ্ধ ভাস্কর্যে এবং সকাল ৮টায় উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবনের বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করা হয়। সরকারি শাহাদৎ পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও কুচকাওয়াজ প্রদর্শনী শেষে  উপজেলা পরিষদ বৈশাখী মঞ্চে বীরমুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা ও আলোচনা সভা হয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইরুফা সুলতানার সভাপতিত্বে স্থানীয় সংসদ সদস্য মেজর জেনারেল (অব) অধ্যাপক ডা. নাসির উদ্দিন, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ ড. মোস্তানিছুর রহমান, সহকারী কমিশনার (ভূমি) গুঞ্জন বিশ্বাস, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. লুৎফুন্নাহার, চৌগাছা থানার ওসি সাইফুল ইসলাম সবুজ, প্রেসক্লাব চৌগাছার সাধারণ সম্পাদক জিয়াউর রহমান রিন্টুসহ জনপ্রতিনিধি, বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা এসএম হাবিবুর রহমানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক ও ফুলসারা ইউপি চেয়ারম্যান মেহেদী মাসুদ চৌধুরীর সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট এবিএম আহসানুল হক আহসান।

উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সিরাজুল ইসলাম রাজ, কাউন্সিলর আতিয়ার রহমান, যুগ্ম সম্পাদক তবিবর রহমান খান, সাংগঠনিক সম্পাদক ও পাশাপোল ইউপি চেয়ারম্যান অবাইদুল ইসলাম সবুজ, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক ও উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাজনীন নাহার পপি, উপজেলা আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক মাহবুবুল আলম রিংকু, সহ-প্রচার সম্পাদক শফিক হায়দার লাভলু, উপজেলা মৎস্যজীবিলীগের সভাপতি ও চৌগাছা সদর ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কাশেম, উপজেলা মৎস্যজীবি লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও নারায়ণপুর ইউপি চেয়ারম্যান শাহিনুর রহমান শাহিনসহ দলের উপজেলা ও বিভিন্ন ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

কেশবপুর

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এম এম আরাফাত হোসেনের সভাপতিত্বে স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা কাজী রফিকুল ইসলাম। এছাড়া দিবসটির বিভিন্ন কর্মসূচিতে অংশ নেন কেশবপুর পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র রফিকুল ইসলাম, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. আরিফুজ্জামান, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান নাসিমা সাদেক, ভাইস চেয়ারম্যান পলাশ কুমার মল্লিক, কেশবপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মফিজুর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এস এম রুহুল আমীন, সহসভাপতি সাবেক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এইচ এম আমির হোসেন ও সিনিয়র আওয়ামী লীগ নেতা তপন কুমার ঘোষ মন্টু, উপজেলা সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক সহকারী অধ্যাপক মশিউর রহমান, উপজেলা নাগরিক সমাজের আহবায়ক অ্যাডভোকেট আবু বক্কর সিদ্দিকী প্রমুখ।

মাগুরা

সকাল সাড়ে ৭টায় মাগুরা নোমানী ময়দানে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতিস্তম্ভে পুস্পস্তবক অর্পন করেন মাগুরা-১ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট সাইফুজ্জামান শিখর, জেলা প্রশাসক মোহম্মাদ আবু নাসের বেগ, সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ অমিত কুমার দে, পুলিশ সুপার মশিউদ্দৌলা রেজা, সাবেক সংরক্ষিত মহিলা সংসদ সদস্য কামরুল লায়লা জলি, সিভিল সার্জন ডাক্তার শহীদুল্লাহ দেওয়ান, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আ ফ ম আব্দুল ফাত্তাহ, সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান পঙ্কজ কুমার কুন্ডু সরকারি হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর আব্দুল হাকিম বিশ্বাসসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। সকাল ৮টায় নোমানী ময়দান মাঠে জাতীয় সংগীতের সাথে সাথে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও পুলিশ, আনসার, ফায়ার সার্ভিস এবং বিএনসিসির সমন্বয়ে কুচকাওয়াজ হয়।

 

মণিরামপুর

সকালে জাতির জনকের ম্যুরালে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন পাবলিক লাইব্রেরির আজীবন সদস্য ও উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাডভোকেট বশির আহম্মেদ খান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও পাবলিক লাইব্রেরির আজীন সদস্য উত্তম চক্রবর্তী বাচ্চু, লাইব্রেরির সাধারণ সম্পাদক সহকারী অধ্যাপক নূরুল হক, সিনিয়র সহসভাপতি অধ্যাপক আব্বাস উদ্দীন, সহসভাপতি সহকারী অধ্যাপক সাজেদুর রহমান লিটু, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান লাইব্রেরির সিনিয়র নির্বাহী সদস্য কাজী জলি আক্তার, অর্থ সম্পাদক প্রভাষক মোস্তাফিজুর রহমান, পাঠাগার সম্পাদক মামুন অর রশিদ জুয়েল, নির্বাহী সদস্য প্রভাষক ফিরোজ আহম্মেদ, নির্বাহী সদস্য ও পৌর কাউন্সিলর সুমন কুমার দাসসহ প্রমুখ।

খুলনা

বিজিবি খুলনা সেক্টর সদর দপ্তর ও খুলনা ব্যাটালিয়নের (২১ বিজিবি) ব্যবস্থাপনায় ১৫০ দুস্থ্য ব্যক্তির মাঝে ইফতার সামগ্রী বিতরণ করা হয়। লেফটেনান্ট কর্নেল মোহাম্মদ তানভীর রহমান ইফতার সামগ্রী বিতরণ করেন।

কয়রা(খুলনা)

সকালে উপজেলা পরিষদ চত্বরে স্মৃতিসৌধে পুস্পস্তবক অর্পণ করে উপজেলা প্রশাসন, উপজেলা পরিষদ, কয়রা থানা, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, উপজেলা আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠন, বিএনপিসহ বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠন, জাতীয় পার্টি, কয়রা উপজেলা প্রেসক্লাব, কয়রা আইনজীবী সমিতি, পুজা উদযাপন পরিষদ, কয়রা সরকারী মহিলা কলেজ, কপোতাক্ষ মহাবিদ্যালয়, কয়রা বাজার কমিটি, মানব কল্যাণ ইউনিট সহ বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন। এরপর আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, কুচকাওয়াজ, ক্রীড়া অনুষ্ঠান শেষে বেলা ১১ টায় উপজেলা পরিষদ চত্বরে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্বর্ধনা ও আলোচনা সভা হয়। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মমিনুর রহমানের সভাপতিত্বে সম্বর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন কয়রা-পাইকগাছার সংসদ সদস্য আক্তারুজ্জামান বাবু। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান এস এম শফিকুল ইসলাম, কয়রা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এবিএম এস দোহা, ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট কোমলেশ কুমার সানা ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাছিমা আলম।

আশাশুনি

সকাল ৯টায় আশাশুনি কেন্দ্রীয় শহিদ স্মৃতিসৌধে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়। এসময় আশাশুনি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এবিএম মোস্তাকিমের নেতৃত্বে উপজেলা পরিষদ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইয়ানুর রহমানের নেতৃত্বে উপজেলা প্রশাসন, অধ্যক্ষ অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদের নেতৃত্বে আশাশুনি সরকারি কলেজ, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মমিনুল ইসলামের নেতৃত্বে আশাশুনি থানা পুলিশসহ সরকারি বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান এবং রাজনৈতিক সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন পুষ্পমাল্য অর্পণ করে।

খুবি

দিবসটি উপলক্ষে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে শহিদ তাজউদ্দীন আহমদ প্রশাসন ভবনের সামনে উপাচার্য প্রফেসর ড. মাহমুদ হোসেন জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে দিবসের কর্মসূচি শুরু করেন। সকাল ৬টা ৩০ মিনিটে শোভাযাত্রা নিয়ে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের মুক্তিযুদ্ধের ভাস্কর্য অদম্য বাংলায় উপাচার্য বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে প্রথম শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করেন। এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. হোসনে আরা, ট্রেজারার প্রফেসর অমিত রায় চৌধুরী, বিভিন্ন স্কুলের ডিন, রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত), ডিসিপ্লিন প্রধান, ছাত্রবিষয়ক পরিচালক, প্রভোস্ট, বিভাগীয় প্রধান, শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। হ উন্নতমানের খাবার পরিবেশন করা হয়।

আদ্-দ্বীন উইমেন্স মেডিকেল কলেজ

সকাল ১০টায় বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করেন মেডিকেল কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। পরে কলেজের ইব্রাহিম লেকচার থিয়েটারে স্বাধীনতা দিবস ও জাতীয় দিবসের আলোচনা সভা হয়। আদ্-দ্বীন উইমেন্স মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মাহমুদা হাসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন আদ্-দ্বীন মেডিকেল কলেজসমূহের চেয়ারম্যান (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যাপক ডা. মুহাম্মদ আব্দুস সবুর।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন আদ্-দ্বীন ফাউন্ডেশনের উপদেষ্টা হারুন অর রশিদ, আদ্-দ্বীন উইমেন্স মেডিকেল কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ ও আদ্-দ্বীন ফাউন্ডেশনের উপদেষ্টা অধ্যাপক ডা. আফিকুর রহমান, ফাউন্ডেশনের উপদেষ্টা অধ্যাপক ডা. আনোয়ার হোসেন মুন্সী, আদ্-দ্বীন হাসপাতালসমূহের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাহিদ ইয়াসমিন প্রমূখ।

কালিগঞ্জ (সাতক্ষীরা)

সকাল পৌনে ৮টায় উপজেলা পরিষদ চত্বরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও সকাল ৮ টায় শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের কবর জিয়ারত করা হয়। একই স্থানে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রহিমা সুলতানা বুশরার সভাপতিত্বে বীরমুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সাতক্ষীরা-৪ আসনের এমপি এসএম জগলুল হায়দার। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সাঈদ মেহেদী, ভাইস চেয়ারম্যান দিপালী রাণী ঘোষ, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আজাহার আলী, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মামুন রহমান, মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার ও মথুরেশপুর ইউপি চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাকিম, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি সদস্য এসএম গোলাম ফারুক প্রমুখ।