মহেশপুরে মুজিব বর্ষের ঘর নির্মাণ নিয়ে গণশুনানি

এখন সময়: বুধবার, ১ ফেব্রুয়ারি , ২০২৩ ০৯:২৪:১১ am

নিজস্ব প্রতিবেদক, মহেশপুর : ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার নেপা ইউনিয়নের সলেমানপুর গ্রামে ভূমিহীন-অসহায় পরিবারের মাঝে মুজিব বর্ষের ১৮ ঘর নির্মাণ করে দেয়া হয়েছে। ঘর নির্মাণের পর ঝিনাইদহ ৩ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ শফিকুল আজম খান চঞ্চল আনুষ্ঠানিকভাবে ভুমিহীন-অসহায় ১৮ পরিবারের মাঝে ঘর হস্তান্তর করেন।

কিন্তু মুজিব বর্ষের ঘর হস্তান্তরের প্রায় এক বছর পর মুজিব বর্ষের ঘর নির্মাণ মিস্ত্রি হামিদুর রহমানের বিরুদ্ধে ভুমিহীন-অসহায় ১৮টি পরিবারের কাছ থেকে ঘর দেয়ার নামে অর্থ আদায়ের একটি অভিযোগ তোলা হয়েছে।

আর এ অভিযোগের কারণ তদন্তে গত সোমবার বিকেলে নেপা ইউনিয়নের সলেমানপুর গ্রামের আশ্রয়ন প্রকল্প দুই এ আশ্রয়ন এলাকায় বসবাসকারী সকল ভূমিহীন পরিবারকে নিয়ে এক গন শুনানি শুরু হয়। গনশুনানিতে মুজিব বর্ষের ঘর নির্মাণ মিস্ত্রি হামিদুর রহমানের বিরুদ্ধে টাকা নেয়ার অভিযোগটি মিথ্যা বলেই প্রমাণিত হয়েছে।

আশ্রয়ন এলাকায় বসবাসকারী সকল ভূমিহীন পরিবারকে নিয়ে অনুষ্ঠিত গনশুনানিতে উপস্থিত ছিলেন মহেশপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নয়ন কুমার রাজবংশী, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মেহেরুন নেছা, নেপা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সামছুল আলম মৃধাসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তি বর্গ।

মুজিব বর্ষের ঘর নির্মাণ মিস্ত্রি হামিদুর রহমান জানান, আমার কাছ থেকে কিছু সুবিধা দেয়ার চেষ্টা করেছিলো সুবিধা ভোগী ময়নুল মিস্ত্রি ও কামরুল ইসলাম নামের দু ব্যক্তি। আমি মিস্ত্রি আমি কাউকে কোন সুবিধা দেয়ার ক্ষমতা রাখিনা বলে জানালে তারা আমার বিরুদ্ধে এই মিথ্যা অভিযোগটি তুলেছে।