যশোর শিক্ষা বোর্ড সরকারি মডেল স্কুল এন্ড কলেজে সেশন চার্জ কমেছে

এখন সময়: বৃহস্পতিবার, ১৯ মে , ২০২২ ১০:৩৮:১৫ am

মিরাজুল কবীর টিটো: যশোর শিক্ষা বোর্ড সরকারি মডেল স্কুল এন্ড কলেজের দ্বাদশ শ্রেণিতে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের সেশন চার্জ কমানো হয়েছে। গভর্ণিং বডির সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এই দাবিতে গত ২৮ ডিসেম্বর শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করতে গেলে বোর্ড চেয়ারম্যানের আশ্বাসে তারা বিরত থাকে। একই সভায় শিক্ষকদের বেতন দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। তবে অন্য ক্লাসের শিক্ষার্থীদের বেতন যেটা নেয়া হচ্ছে সেটা নেয়া হবে।

বোর্ড স্কুল সূত্র জানায়, শিক্ষা বোর্ড মডেল স্কুল এন্ড কলেজের ২০২২ সালে উত্তীর্ণ দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের অভিযোগ বোর্ড স্কুল এন্ড কলেজ সরকারি করণ হলেও সরকারি নিয়মে বেতন ও সেশন চার্জ নেয়া হয় না। ভর্তির সময় শিক্ষার্থীদের তৃতীয় শ্রেণি থেকে ৫ম শ্রেণি ৬ হাজার ৪৭০ টাকা ও বেতন ৮শ টাক, ষষ্ঠ থেকে অষ্টম ৬ হাজার ৭৭০ টাকা, বেতন ৮৫০ টাকা ও নবম শ্রেণির সেশনচার্জ ৭ হাজার ৪৭০ টাকা ও বেতন ৯শ’ টাকা দিতে হয়। দ্বাদশ শ্রেণির সেশন চার্জ ৮ হাজার ৫শ টাকা, বেতন ৯শ টাকা। সেশন চার্জ কমানোর  দাবিতে গত ২৮ ডিসেম্বর দ্বাদশ শ্রেণিতে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা মানব বন্ধন করতে গেলে বোর্ড চেয়ারম্যানের আশ^াসে তারা মানববন্ধন করা থেকে বিরত থাকে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় গভর্ণিং বডির সভায় দ্বাদশ শ্রেণিতে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের সেশনচার্জ কমানো হয়েছে। ৮ হাজার ৫শ টাকার সেশনচার্জ বিজ্ঞানে ৪ হাজার ৫২০ টাকা, মানবিক ও বাণিজ্যে নির্ধারণ করা হয়েছে ৩ হাজার ৭৩৫ টাকা। সেই সাথে শিক্ষকদের বকেয়া থাকা ছয় মাসের বেতন দেয়া হবে বলে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। স্কুল ফান্ড থেকে এ টাকা দেয়া হবে। আগের বোর্ড চেয়ারম্যান প্রফেসর মোল্লা আমীর হোসেনের  মৌখিক নির্দেশে স্কুলে টাকা দেয়া বন্ধ হয়ে যায়। ছয় মাস শিক্ষকদের বেতন বকেয়া রয়েছে।

 এ ব্যাপারে বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. আহসান হাবীব জানান, দ্বাদশ শ্রেণিতে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের সেশন চার্জ কমানো হয়েছে। শিক্ষকদের ছয় মাসের বকেয়া বেতনের টাকা  দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। শিক্ষা বোর্ড সরকারি মডেল স্কুল এন্ড কলেজ সরকারিকরণ হলেও  আত্মিকরণ না হওয়ায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে অন্যান্য ক্লাসে পুরো বেতন ও সেশন চার্জ নেয়া হবে।