ই-পেপার ফটোগ্যালারি আর্কাইভ বুধবার, ২৭ অক্টোবর , ২০২১ ● ১১ কার্তিক ১৪২৮

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে জাতির জনককে স্মরণ

Published : Sunday 15-August-2021 22:52:28 pm
এখন সময়: বুধবার, ২৭ অক্টোবর , ২০২১ ০২:২৩:০৮ am

স্পন্দন ডেস্ক : বঙ্গবন্ধুর শাহাদতবার্ষিকী উপলক্ষে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভার্চুয়াল আলোচনা , আবৃত্তি ও রচনা প্রতিযোগিতা, শোক র‌্যালি, দোয়া ও বিশেষ প্রার্থনা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

যবিপ্রবি : বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে পুষ্পস্তবক অর্পণ, দোয়া-মোনাজাতসহ নানা কর্মসূচিতে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ে (যবিপ্রবি) জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালন করা হয়েছে।

রোববার সূর্যোদয়ের সাথে সাথে বিশ^বিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে জাতীয় পতাকা ও বিশ^বিদ্যালয় পতাকা অর্ধনমিতকরণ এবং কালো পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে জাতীয় শোক দিবসের আনুষ্ঠানিক কর্মসূচি শুরু হয়। বিশ^জুড়ে করোনার কারণে অত্যন্ত সংক্ষিপ্ত পরিসরে যবিপ্রবিতে এবারের জাতীয় শোক দিবসের কর্মসূচি পালন করা হয়।  

সকাল সাড়ে ৯টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা, কর্মচারীদের সাথে নিয়ে বিশ^বিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক মো. আব্দুল মজিদ যবিপ্রবির উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ার হোসেনের পক্ষ থেকে যশোর শহরস্থ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরালে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। একে একে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতি, কর্মকর্তা সমিতি, কর্মচারী সমিতি, যবিপ্রবি ছাত্রলীগ, সাংবাদিক সমিতিসহ অন্যান্য পেশাজীবী, সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন, হলসমূহ জাতির পিতার ম্যুরালে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করে। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে সকাল ১০টায় বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে যবিপ্রবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ আনোয়ার হোসেনসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যান্য সংগঠনের নেতৃবৃন্দ পুষ্পস্তবক অর্পন করেন। জোহর বাদ  বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবসহ ১৫ আগস্টে নিহত সকল শহিদের রূহের মাগফিরাত কামনা করে বিশেষ দোয়া-মোনাজাতের আয়োজন করা হয়। দোয়া-মোনাজাত পরিচালনা করেন বিশ্বাবদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম মাওলানা মো. আকরামুল ইসলাম। এ ছাড়া ১৫ আগস্টে নিহত সকল শহিদের আত্মার শান্তি কামনায় যবিপ্রবির সনাতন পরিবার বিশ^বিদ্যালয়ের নির্মাণাধীন ছাত্র-শিক্ষক মিলনায়তনে (টিএসসি) বিশেষ প্রার্থনার আয়োজন করে। বিশেষ এ প্রার্থনা পরিচালনা করেন যবিপ্রবির অ্যাকাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগের সহকারী অধ্যাপক তরুন সেন। এ সময় যবিপ্রবির শিক্ষক অধ্যাপক ড. মৃত্যুঞ্জয় বিশ^াস, ড. কিশোর মজুমদার, ড. শিমুল সাহা, কিশোর কুমার সরকার, সমীরণ মন্ডল, সেকশন অফিসার রামানন্দ পালসহ বিশ^বিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।    

দিনব্যাপী কর্মসূচিতে যবিপ্রবির রিজেন্ট বোর্ডের সদস্য অধ্যাপক ড. মো. আনিছুর রহমান, অধ্যাপক ড. বিপ্লব কুমার বিশ^াস, অধ্যাপক ড. মো. ইকবাল কবীর জাহিদ, ডিন অধ্যাপক ড. সৈয়দ মো. গালিব, অধ্যাপক ড. মো. জিয়াউল আমিন, অধ্যাপক ড. সাইবুর রহমান মোল্যা, ড. মো. আব্দুল্লাহ আল মামুন, ড. মো. মেহেদী হাসান, রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মো. আহসান হাবীব, প্রক্টর ড. সেলিনা আক্তার, প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. মো. নাজমুল হাসান, অধ্যাপক ড. মো. জাফিরুল ইসলাম, ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা দপ্তরের পরিচালক ড. মো. আলম হোসেন, শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. মো. তোফায়েল আহমেদ, কর্মকর্তা সমিতির সভাপতি ড. মো. আব্দুর রউফ, সাধারণ সম্পাদক এ টি এম কামরুল হাসান, কর্মচারী সমিতির সভাপতি মো. শওকত ইসলাম সবুজ, সাধারণ সম্পাদক মো. বদিউজ্জামান বাদলসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের চেয়ারম্যান, দপ্তর প্রধানগণ, শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এ ছাড়া যবিপ্রবি ছাত্রলীগের সদ্য সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আফিকুর রহমান অয়ন, শহীদ মসিয়ূর রহমান হলের সভাপতি বিপ্লব কুমার দে শান্ত, যুগ্মসাধারণ সম্পাদক সোহেল রানা, বিশ^বিদ্যালয় শাখার সাবেক তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক আল মামুন শিমন, আশিক খন্দকার, কামরুল হাসান শিহাব, যবিপ্রবি সাংবাদিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোসাব্বির হোসাইন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

যবিপ্রবি -নীলদল: বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে পুষ্পস্তবক অর্পণ, সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা ও দোয়া-মোনাজাতসহ নানা কর্মসূচিতে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ^াসী শিক্ষকবৃন্দদের সংগঠন নীল দল জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালন করেছে। 

সংগঠনটি জাতীয় শোক দিবসের কর্মসূচি শুরু করে রোববার সকাল ৯টা ৩৭ মিনিটে যশোর শহরের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরালে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানোর মাধ্যমে। পরে সকাল সকাল ১০টা ১০ মিনিটে যবিপ্রবির প্রধান ফটকেও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরালে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানায় সংগঠনটি। বেলা ১১টায় যবিপ্রবির মাইকেল মধুসূদন দত্ত একাডেমিক কাম লাইব্রেরি ভবনে সংগঠনটি জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আয়োজন করে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা। এতে সভাপতিত্ব করেন যবিপ্রবি নীল দলের আহ্বায়ক ও বিশ^বিদ্যালয়ের রিজেন্ট বোর্ডের সদস্য অধ্যাপক ড. মো. ইকবাল কবীর জাহিদ। যৌথভাবে সভা পরিচালনা করেন নীল দলের সদস্য সচিব এবং বিশ^বিদ্যালয়ের ফিজিওথেরাপি ও পুনর্বাসন বিভাগের চেয়ারম্যান ডা. মো. ফিরোজ কবির এবং পুষ্টি ও খাদ্য প্রযুক্তি বিভাগের চেয়ারম্যান ও কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক ড. মোঃ আশরাফুজ্জামান জাহিদ।  

সভায় আরও বক্তব্য দেন যবিপ্রবির নীল দলের নেতা অধ্যাপক ড. সৈয়দ মো. গালিব, অধ্যাপক ড. মো. নাজমুল হাসান, অধ্যাপক ড. মো. জাফিরুল ইসলাম, এ এস এম মুজাহিদুল হক, ড. মো. মেহেদী হাসান, ড. মো. কামাল হোসেন, ড. সেলিনা আক্তার, মো. মুনিবুর রহমান, ড. হাসান মো. আল-ইমরান, ড. শিরিন নিগার, ড. মো. হাফিজ উদ্দিন, তানভীর আহমেদ, ড. শিমুল সাহা, ড. আজিজুর রহমান খান, জিল্লুর রহমান, ফাতেমা-তুজ-জোহরা, মো. আব্দুস সালাম, আর এম হাবিবুর রহমান, মো. হাবিবুর রহমান, মো. শাহীন সরকার, মোস্তাফিজুর রহমান, ফারজানা ইয়াসমিন, ডা. মো. জাহিদ হোসেন, সিফাত রাহী, অভিজিৎ দাস, শারমিন সুলতানা সুমিসহ বিভিন্ন অনুষদ ও বিভাগের শিক্ষকবৃন্দ।

পরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবসহ ১৫ আগস্টে নিহত সকল শহিদের রূহের মাগফিরাত কামনা করে বিশেষ দোয়া-মোনাজাতের আয়োজন করা হয়। দোয়া পরিচালনা করেন যবিপ্রবির ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ডিন ড. মো. মেহেদী হাসান।

সরকারি এমএম কলেজ : সরকারি এমএম কলেজের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন অধ্যক্ষ প্রফেসর আব্দুল মজিদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক প্রফেসর নাসিম রেজা। সভাপতিত্ব করেন অনুষ্ঠান পরিচালনা কমিটির আহবায়ক প্রফেসর আব্বাস আলী। বক্তব্য রাখেন রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর এম হাসান সরোওয়ার্দী, দর্শনের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর শাহাবুদ্দিন প্রমুখ।

সরকারি মহিলা কলেজ: সরকারি মহিলা কলেজ আলোচনাসভা ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। প্রধান অতিথি ছিলেন অধ্যক্ষ প্রফেসর ড.আহসান হাবীব। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপাধ্যক্ষ প্রফেসর মিয়া আব্দুর রশীদ, শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক হুমায়ুন কবীর। অনুষ্ঠান উদযাপন কমিটি আহবায়ক প্রফেসর একে এম আব্দুর রহমানের সভাপতিত্বে বিভিন্ন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান সংযুক্ত ছিলেন। শেষে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

এমএসটিপি গালর্স স্কুল এন্ড কলেজ:  এমএসটিপি গালর্স স্কুল এন্ড কলেজের আলোচনা ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ খায়রুল আনামের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন ও বক্তব্য রাখেন বিদ্যালয়ের দাতা সদস্য মিজানুর রহমান, সহকারী প্রধান শিক্ষক মাহমুদা বেগম, সহকারী শিক্ষক নুরুল ইসলাম, আব্দুল খালেক, আশানারা বেগম, বীথিকা দে, প্রমুখ।

যশোর শিক্ষা বোর্ড: মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড যশোরে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। প্রধান অতিথি ছিলেন বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মোল্লা আমির হোসেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন বোর্ডের সচিব এএমএইচ আলী আর রেজা। উপ কলেজ পরিদর্শক মদন মোহন দাশের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর মাধব চন্দ্র রুদ্র, বিদ্যালয় পরিদর্শক ড. বিশ^াস শাহীন আহমেদ, উপপরিচালক এমদাদুল হক, প্রধান মূল্যায়ন অফিসার মিজানুর রহমান, উপবিদ্যালয় পরিদর্শক রফিকুল ইসলাম,  প্রোগ্রামার মোজাম্মেল হক চৌধুরী কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি আব্দুল মান্নান প্রমুখ। পরিচালনা করেন উপসহকারী প্রখৌশলী কামাল হোসেন।

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়: খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬তম শাহাদাৎ বার্ষিকী জাতীয় শোক দিবস যথাযথ মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যের সাথে পালিত হয়। জাতীয় শোক দিবসের কর্মসূচির শুরুতে সকাল ৯টায় শহিদ তাজউদ্দীন আহমদ প্রশাসন ভবনের সামনে কালোব্যাজ ধারণ, জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতকরণ ও কালো পতাকা উত্তোলন করা হয়। সকাল ৯-২০ মিনিটে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণের প্রাক্কালে উপাচার্যের নেতৃত্বে শোকর‌্যালি শহিদ তাজউদ্দীন আহমদ প্রশাসন ভবনের সামনে থেকে শুরু হয়ে মুজিববর্ষ উপলক্ষে স্থাপিত কালজয়ী মুজিব চত্বরে গিয়ে শেষ হয়। র‌্যালিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য, ট্রেজারার, ডিনবৃন্দ, রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত), ডিসিপ্লিন প্রধানবৃন্দ, প্রভোস্টবৃন্দ, ছাত্র বিষয়ক পরিচালক, শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। পরে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে উপাচার্য প্রফেসর ড. মাহমুদ হোসেন শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করেন। এসময় উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. মোসাম্মাৎ হোসনে আরা, ট্রেজারার সাধন রঞ্জন ঘোষ, ডিনবৃন্দ, রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) উপস্থিত ছিলেন। এরপরপরই খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় স্কুল, বিভিন্ন স্কুল (অনুষদ), বিভিন্ন ডিসিপ্লিন (বিভাগ), বিভিন্ন হল, শিক্ষক সমিতি, অফিসার্স কল্যাণ পরিষদ ও বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করা হয়। শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণের পর উপাচার্য আইন ডিসিপ্লিন কর্তৃক মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে প্রকাশিত স্মরণিকা ‘অগ্নিগিরির অস্তাচল’ এর মোড়ক উন্মোচন করেন। এ সময় উপউপাচার্য, আইন স্কুলের ডিন ও ডিসিপ্লিন প্রধান, স্মরণিকার সম্পাদক উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া সকাল ১১টায় শহিদ তাজউদ্দীন আহমদ ভবনের সম্মেলন কক্ষে ওয়েবিনারে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। উপাচার্য প্রফেসর ড. মাহমুদ হোসেনের সভাপতিত্বে সভায় মুখ্য আলোচক ছিলেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ড. আব্দুল খালেক। বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপউপাচার্য প্রফেসর ড. মোসাম্মাৎ হোসনে আরা, ট্রেজারার প্রফেসর সাধন রঞ্জন ঘোষ। সঞ্চালনা করেন রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর খান গোলাম কুদ্দুস। এ সময় আরও বক্তব্য রাখেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. মো. ওয়ালিউল হাসানাত, অফিসার্স কল্যাণ পরিষদের সভাপতি শেখ মুজিবুর রহমান।  সভাপতিত্ব করেন  খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মাহমুদ হোসেন। এছাড়া বাদ যোহর বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। দোয়ার পূর্বে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর খান গোলাম কুদ্দুস। এর আগে সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয় মন্দিরে প্রার্থনা অনুষ্ঠিত হয়। প্রার্থনা অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন উপাচার্য প্রফেসর ড. মাহমুদ হোসেন, ট্রেজারার প্রফেসর সাধন রঞ্জন ঘোষ, মন্দির নির্মাণ কমিটির সভাপতি প্রফেসর ড. সমীর কুমার সাধু, কর্মকর্তাদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন দীপক চন্দ্র মন্ডল, বিমান সাহা। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন কৃষ্ণপদ দাশ। প্রার্থনা শেষে শহিদদের স্মরণে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

সাতক্ষীরা সিটি কলেজে : সাতক্ষীরা সিটি কলেজে দিবসটি উপলক্ষে এক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। সকাল ১০ টায় কলেজের হলরুমে এ আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। সাতক্ষীরা সিটি কলেজের অধ্যক্ষ আবু সাঈদ এর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন মো. আলতাফ হোসেন, মো. আব্দুল আজিজ, মো. বেলাল হোসেন, পলাশ কুমার মল্লিক, মো. আরিফ হোসেন, সুরাইয়া জাহান, নাজমুন নাহার, মো. আমিনুর রহমান, পবিত্র কুমার মন্ডল, মো. আ. জলিল, ইউনুছ আলী, মো. ফিরোজ কবির প্রমুখ। সমগ্র অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন মো. আব্দুল ওহাব আজাদ। সভা শেষে দোয়া মাহফিল পরিচালনা করেন মো. কামরুল ইসলাম।

এমএআইটি যশোর : জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বেসরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মুসলিম এইড ইন্সটিটিউট অব টেকনোলজি - এমএআইটি যশোর ক্যাম্পাস দিনব্যাপী নানা কর্মসূচি গ্রহণ করে। শোক র‌্যালী করে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে পুষ্পার্ঘ অর্পণের মাধ্যমে ১৫ আগস্টে নিহত জাতীর পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুননেছা মুজিবসহ তাঁর পরিবারের সদস্যদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন ও সকল শহীদের রুহের মাগফিরাত কামনা করে মিলাদ মাহফিল ও দোয়ার অনুষ্ঠান। এ সকল অনুষ্ঠানে এমএআইটি যশোরের অধ্যক্ষ প্রকৌশলী মো. আক্তার আলী, এ্যাডমিশন এন্ড জব প্লেসমেন্ট অফিসার নূর ইসলাম, এ্যাডমিন অফিসার  মোহাম্মদ ইয়াহিয়া খালেদ, একাউন্টস অফিসার নাজমুল হোসেন, কম্পিউটার ডিপার্টমেন্টের প্রধান প্রকৌশলী আরিফুজ্জামান, সিভিল ডিপার্টমেন্টের শিক্ষক প্রকৌশলী ফিরোজা আক্তার, প্রকৌশলী শায়লা আজিজ, ইলেকট্রিকাল ডিপার্টমেন্টের শিক্ষক প্রকৌশলী আসাদুজ্জামান আসাদ, প্রকৌশলী সাদ্দাম হোসেনসহ শিক্ষক ও কর্মকর্তা কর্মচারীবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।