ই-পেপার ফটোগ্যালারি আর্কাইভ রবিবার, ১৭ অক্টোবর , ২০২১ ● ২ কার্তিক ১৪২৮

মহম্মদপুরে পাঁচশ’ বছরের পুরানো আশ্রম ও শ্মশানে আগুন

Published : Tuesday 30-March-2021 21:26:02 pm
এখন সময়: রবিবার, ১৭ অক্টোবর , ২০২১ ০৬:৩৪:৪৪ am

সুব্রত সরকার, মহম্মদপুর (মাগুরা) : মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলার বাবুখালি ইউনিয়নের পাড়–য়ারকুল অষ্টোগ্রামে প্রায় পাঁচশত বছরের পুরানো সীতা পাগলের আশ্রম ও মহা শ্মশানের ৩ টি ঘরে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় বড় ধরনের কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি বলে জানিয়েছেন মন্দির কমিটির সভাপতি অজিত কুমার। রোববার গভীর রাতে দুর্বৃত্তের দেয়া আগুনে আশ্রমের পুরোহিতের ঘর, সমাধিঘর ও রান্না ঘরের আংশিক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এ ঘটনায় মহম্মদপুর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছে মন্দির কমিটির সদস্যরা। হিন্দু সম্প্রদায়ের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

মহম্মদপুর থানার অফিসার ইনচার্জ তারক বিশ্বাস জানান, উপজেলার পাড়–য়ারকুল গ্রামের সংখ্যালঘুদের আশ্রমের পুরোহিতের ঘর, সমাধিঘর ও রান্না ঘরে রোববার গভীর রাতে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। আগুনে মন্দির ও আশ্রমের তিনটি ঘরের অংশিক, রথ ও বিগ্রহ পুড়ে গেছে। খবর পেয়ে  ভোরে দমকল কর্মীরা যাওয়ার আগেই আগুন নিভে যায়। মন্দিরটি নির্জন এলাকায় হওয়ায় দুর্বৃত্তরা সহজেই আগুন ধরিয়ে পালিয়ে যায়।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন মাগুরা জেলা প্রশাসক ড.আশরাফুল আলম, পুলিশ সুপার জহিরুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইব্রাহিম আলম, মহম্মদপুর উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ আবু আব্দুল্লাহহেল কাফী, উপজেলা নির্বাহী অফিসার রামানন্দ পাল, সহকারী কমিশনার (ভূমি) হরেকৃষ্ণ অধিকারী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আব্দুল মান্নান,পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি শ্রীকান্ত বিশ্বাস, বাবুখালী ইউপি চেয়ারম্যান মীর সাজ্জাদ আলী। মন্দির কমিটির সভাপতি অজিত কুমার জানান, ‘কে বা কারা রাতের আঁধারে আশ্রমের মন্দিরে আগুন দিয়েছে। আমরা আতঙ্কের মধ্যে আছি। এর আগে কখনো এমন ঘটনা ঘটেনি।

মহম্মদপুর উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ও হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সংগঠনিক সম্পাদক স্বপ্না রানী বিশ্বাস জানান, ভোরে পরিচ্ছন্নতা কর্মী গুরুদাস মন্দিরে এসে আগুন দেখতে পান। এ সময় তিনি মন্দির কমিটির সেক্রেটারি লক্ষণ গোলদারকে খরব দেন। পরে বিষয়টি প্রশাসন ও দমকল বাহিনীকে জানানো হয়। খবর পেয়ে মহম্মদপুর থেকে দমকল বাহিনী আসার আগেই আগুন নিভে যায়। হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সংগঠনিক সম্পাদক স্বপ্না রানী বিশ্বাস জানান ঘটনাটিকে নাশকতা, সা¤ম্প্রায়িক উস্কানি ও রাজনৈতিক অস্থিরতা সৃষ্টির অপকৌশল হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন।

মহম্মদপুরের  সহকারী কমিশনার (ভূমি) হরেকৃষ্ণ অধিকারী ঘটনাস্থল থেকে জানান, আশ্রমের একটি মন্দির ও দুটি ঘর আগুনে আংশিক ক্ষতিগ্রস্ত  হয়েছে, বিগ্রহ অক্ষত আছে। তবে রথটি পুড়ে গেছে।

মহম্মদপুর থানার ওসি তারক বিশ^াস বলেন, বিষয়টি নাশকতা হলে তদন্ত পূর্বক কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।