ই-পেপার ফটোগ্যালারি আর্কাইভ সোমবার, ১৮ অক্টোবর , ২০২১ ● ২ কার্তিক ১৪২৮

ঝিকরগাছা আওয়ামী লীগের ভার্চুয়াল আলোচনা সভা

Published : Wednesday 18-August-2021 22:02:27 pm
এখন সময়: সোমবার, ১৮ অক্টোবর , ২০২১ ০০:৩২:০৯ am

এম আলমগীর, ঝিকরগাছা : যশোর-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য অ্যাড. মনিরুল ইসলাম মনির বলেছেন, খালেদা নিজামীর জামাত-বিএনপি’র সরকারের মদদে সেদিন জেএমবি সারা বাংলাদেশে ৫০১  জায়গায় সিরিজ বোমা হামলা করেছিল। আর শেখ হাসিনার আওয়ামী লীগ সরকার সারা বাংলাদেশে বোমা ও গ্রেনেড এর পরিবর্তে ৫৬০ মডেল মসজিদ করে প্রমান করেছেন শাস্তির ধর্ম ইসলাম কাদের কাছে নিরাপদ? যারা ইসলামের ধারক ও বাহক হিসাবে জনগণের সামনে নিজেদের প্রকাশ করতে চাই, আসলে তাদের মুখে ও অন্তরে দুই রকম কথা। তারা ধর্মকে পুঁজি করে সাধারণ মানুষের সমার্থন পেতে চাই।

তিনি আরো বলেন, ২০০৫ সালের ১৭ আগস্ট সারাদেশে একযোগে বোমা হামলা চালায় নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জামা’আতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশ (জেএমবি)। বিএনপি-জামায়াতের মদতে সংগঠিত জেএমবি সারাদেশে তাদের অস্তিত্ব জানান দিতে তারা মরিয়া হয়ে ওঠেছিল। তারই ধারাবাহিকতায় মুন্সীগঞ্জ জেলা বাদে দেশের ৬৩ জেলায় বেলা ১১টায় সিরিজ বোমা হামলা চালায়। দেশের ৪৫০টি স্থানে পাঁচ শতাধিক বোমার বিস্ফোরণ ঘটায় জঙ্গিরা। এই হামলায় নিহত হন দুজন এবং আহত হন দুই শতাধিক ব্যক্তি। হামলা চালানো হয় সুপ্রিম কোর্ট, জেলা আদালত, বিমানবন্দর, বাংলাদেশে থাকা মার্কিন দূতাবাস, জেলা প্রশাসক, জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়, প্রেস ক্লাব ও সরকারি-আধা সরকারি গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা লক্ষ্য করে। জননেত্রী শেখ হাসিনা রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় এসে জঙ্গি ও জঙ্গি সংগঠনকে প্রতিহত করতে সফল হয়েছে। তরে দেশের কিছু কিছু জঙ্গি এখনও আফগানের সাথে যোগাযোগ রেখে দেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে চায়। জঙ্গি যাতে দেশে আর মাথা চাড়া দিতে না পারে তার জন্য আমাদের সবাইকে সজাগ থাকতে হবে।

১৭ আগস্ট সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদ দিবসে ঝিকরগাছা উপজেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত এক ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সোমবার রাত ৯টা থেকে ১২টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত এ সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম মুকুল। আলোচক হিসেবে অংশগ্রহণ করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুছা মাহমুদ, মুক্তিযুদ্ধকালীন ঝিকরগাছা থানা ছাত্রলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল লতিফ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মাস্টার এনামুল কবির, সাবেক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আবুল কাশেম, সাবেক সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক মীর বাবরজান বরুণ।

উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রস্তাবিত কমিটি উপ-দফতর সম্পাদক এনামুল হক মনি এর সঞ্চালনায় আলোচনায় আরো অংশ নেন নির্বাসখোলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম, বাঁকড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাস্টার হেলালউদ্দীন খান, নাভারণ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম বুলি, নির্বাসখোলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক আলমগীর হোসেন, উপজেলা সেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্নআহবায়ক লোটাস জোহা ও শেখ ইমরান প্রমুখ।