ই-পেপার ফটোগ্যালারি আর্কাইভ মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর , ২০২১ ● ১১ কার্তিক ১৪২৮

কেশবপুরে কাউন্সিলরের বাড়িতে হামলা: সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যানসহ ২৮ জনের নামে মামলা

Published : Tuesday 15-June-2021 22:12:48 pm
এখন সময়: মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর , ২০২১ ১৪:৫৬:৪১ pm

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোর কেশবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পৌরসভার কাউন্সিলর ইবাদত হোসেন বিপুলের বাড়িতে হামলা, ভাঙচুর লুটপাট ও মারপিটের অভিযোগে সাবেক উপজেলা চেয়াম্যান এইচএম আমীর হোসেনসহ ২৮ জনকে আসামি করে আদালতে একটি মামলা হয়েছে। মঙ্গলবার কেশবপুর পৌর এলাকার বালিয়াডাঙ্গা গ্রামের মৃত. আবু বকর সিদ্দিকের স্ত্রী, কাউন্সিলরের মা ও আসামি আমীর হোসেনের শাশুড়ি সাহিদা সিদ্দিকী বাদী হয়ে এ মামলা করেছেন। সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মঞ্জুরুল ইসলাম অভিযোগের তদন্ত করে পিবিআইকে তদন্ত করে প্রতিবেদন জমা দেয়ার আদেশ দিয়েছেন।

আসামিরা হলো, কেশবপুর পৌর এলাকার বালিয়াডাঙ্গার এইচএম আমীর হোসেন ও তার ছেলে আসিফ আমির অর্পন, মৃত শামসুর রহমান গাজীর ছেলে আবুল কালাম আজাদ, আসলাম হোসেনের ছেলে আলমগীর হোসেন আলম, কবির মোল্লার মেয়ে ফাতেমা বেগম, আমজাদ হোসেনের ছেলে জাহিদ হোসেন, মৃত আছিল উদ্দিনের ছেলে হযরত আলী, রুহুল কুদ্দুসের ছেলে রিয়াজুল ইসলাম, মৃত আমীর আলী মোড়লের ছেলে মারুফ হোসেন, রেজাউল ইসলামের ছেলে আব্দুল্লাহ, মহাতাব বিশ্বাসের ছেলে রাজ্জাক বিশ্বাস, মৃত আব্বাস গাজীর ছেলে সাবান আলী, সামছুর রহমানের ছেলে আব্দুল হাকিম, আখতার গাজীর ছেলে রাজু আহম্মেদ, আরিফ গাজীর ছেলে কুদ্দুস আলী গাজী, রমজান আলীর ছেলে কামরুল, সামছুর রহমানের ছেলে আব্দুল হাকিম, মোতাহারের ছেলে নাজমুল ইসলাম আকাশ, হোসেন মিস্ত্রীর ছেলে রাসেল, তালেব গাজীর ছেলে মনিরুজ্জামান, মোতাহারের ছেলে তরিকুল ইসলাম, আব্দুল আজিজের ছেলে রবিউল ইসলাম, রহমত আলীর ছেলে আব্দুর রাজ্জাক, মোস্তফার ছেলে তাজ উদ্দীন দফাদার, আমজাদ আলী মোড়লের ছেলে জাহিদ হাসান, ওহাব মোড়লের ছেলে রেজাউল ও একই এলাকার বরিশালের জসিম।

মামলার অভিযোগে জানা গেছে, এবাদত সিদ্দিক বিপুল কেশবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও পৌরসভার ৯ নম্বর ওয়াডের নির্বাচিত কাউন্সিলার। আসামি এইচএম আমীর হোসেন সাবেক উপজেলা চেয়াম্যান ও মামলার বাদী সাহিদা সিদ্দিকীর জামাই। নির্বাচন ও জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে আসামি আমীর হোসেন ষড়যন্ত্র করতের থাকে বিপুলের ক্ষতি কার জন্য। আমীর হোসেন জালিয়াতি ও ফাঁকি দিয়ে পৌর এলকার মূল্যবান সম্পত্তি আত্মসাত করেছে। গত ১২ মে আসামিরা গেট ভেঙে বাড়িতে প্রবেশ করে ভাংচুর, লুটপাট ও লোকজনদের মারপিট করে। এক পর্যায়ে হামলা ভাঙচুরের শব্দে প্রতিবেশীরা এগিয়ে আসলে আসামিরা পালিয়ে যায়। এ ব্যাপারে থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশ তা গ্রহণ না করায় তিনি আদালতে এ মামলা করেছেন।



আরও খবর