ই-পেপার ফটোগ্যালারি আর্কাইভ শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর , ২০২১ ● ২ আশ্বিন ১৪২৮

করোনাযোদ্ধা মোস্তফা জীবন বাজি রেখে করছেন জীবনের সেবা

Published : Tuesday 27-July-2021 22:02:36 pm
এখন সময়: শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর , ২০২১ ১৩:২৭:০২ pm

বিল্লাল হোসেন: গোলাম মোস্তফা। যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের মেডিকেল টেকনোলজিস্ট (ল্যাব) হিসেবে কর্মরত।  দেড় হাজারের বেশি মৃত ও জীবিত নারী পুরুষের নমুনা সংগ্রহের পর ২০২০ সালের ১১ জুলাই তিনি নিজেই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন। হোমআইসোলেশনে দীর্ঘ চিকিৎসাসেবায় করোনামুক্ত হয়ে পরের মাসের শেষের দিকে কর্মস্থলে যোগদান করেন গোলাম মোস্তফা। সেই থেকে তার নেতৃত্বে প্রতিদিন করোনা সন্দিগ্ধ শ’শ’ করোনা রোগীর নমুনা সংগ্রহ করা হচ্ছে। এদের মধ্যে কারো ফলাফল করোনা পজেটিভ আবার কারো নেগেটিভ শনাক্ত হচ্ছে। নিজে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পরও গোলাম মোস্তফা ঝুঁকিপূর্ণ এই কাজ করতে পিছু পা হননি। রীতিমতো জীবন বাজি রেখে জীবনের সেবা করে চলেছেন।  ক্লান্তিকাল লগ্নে মানবসেবা এক অন্য রকম ভালো লাগা। দেশসেবায় ব্রত নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন বলে অভিমত তার।

হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা, আরিফ আহমেদ জানান, যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে করোনা আইসোলেশন ওয়ার্ড চালু করার পর থেকে করোনা উপসর্গ নিয়ে ভর্তি ও মৃত মানুষের নমুনা সংগ্রহের দায়িত্ব পালন করছেন গোলাম মোস্তফা। এর ফাঁকে নিজেই আক্রান্ত হয়েছিলেন করোনায়। বর্তমানে তিনি একজন করোনাযোদ্ধা। করোনা জয় করার পর কর্মস্থলে ফিরে তিনি মানব সেবায় নেমে পড়েন। যে কারণে গোলাম মোস্তফা অবশ্যই প্রশংসা কুড়িয়েছেন। বর্তমানে ল্যাবে আন্তরিকভাবে দায়িত্ব পালন করে চলেছেন। প্রতিদিন তার নেতৃত্বে ল্যাব টেকনিশিয়ানরা শ’শ’ মানুষের নমুনা সংগ্রহ করে করোনা পরীক্ষার জন্য ল্যাবে পাঠাচ্ছেন। 

জানা গেছে, কর্মস্থলে আসার পর একটানা বিকেল পর্যন্ত ল্যাবে কাজ করেন গোলাম মোস্তফা। দুপুরের খাওয়া খান ল্যাবে। কোনো কোনো দিন সন্ধ্যায় বাড়ি ফেরেন তিনি।

গোলাম মোস্তফা জানান, সব সময় নিজের জীবনের চেয়ে দায়িত্বকে বড় করে দেখেছেন। প্রতিদিন করোনা সন্দিগ্ধ মানুষের নমুনা সংগ্রহ করে সিভিল সার্জন অফিসের মাধ্যমে ল্যাবে পাঠানো হচ্ছে। দায়িত্বের শেষ দিন পর্যন্ত মানুষের সেবা করতে চাই। তার মতো আরো কয়েকজন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ল্যাবে কাজ করে চলেছেন। তারা সকলে দেশসেবায় ব্রত নিয়ে কাজ করছেন।

হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আখতারুজ্জামান জানান, সারাদেশে করোনাভাইরাসের প্রকোপ চলছে। যশোরেও দাপট কম না। করোনার ভয়কে জয় করে গোলাম মোস্তফা আন্তরিকতার সাথে দায়িত্ব পালন করছেন। এজন্য তিনি অবশ্যই প্রশংসার দাবিদার। তত্ত্বাবধায়ক আরও জানান, আমার নিজের নমুনা সংগ্রহ করেছিলেন গোলাম মোস্তফা। তিনি একজন অভিজ্ঞ মেডিকেল টেকনোলজিস্ট। তার বলিষ্ট নেতৃত্বে হাসপাতালের ল্যাব সুনামের সাথে পরিচালনা হচ্ছে। করোনা নিয়ে তার মধ্যে কোনো আতঙ্ক কাজ করেনি। গোলাম মোস্তফা সময়ের সাহসী একজন যোদ্ধা।

 



আরও খবর