ই-পেপার ফটোগ্যালারি আর্কাইভ রবিবার, ১৭ অক্টোবর , ২০২১ ● ২ কার্তিক ১৪২৮

আশাশুনিতে কমিউনিটি ক্লিনিক নির্মাণে বাধা

Published : Monday 06-September-2021 21:54:20 pm
এখন সময়: রবিবার, ১৭ অক্টোবর , ২০২১ ১৭:৫২:২৯ pm

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি : সাতক্ষীরায় আশাশুনি উপজেলার ২ নম্বর বুধহাটা ইউনিয়নে ‘শেখ আব্দুস সোবহান কমিউনিটি ক্লিনিক’ প্রতিষ্ঠায় বাধা দিয়েছে জনৈক কার্তিক মুখার্জির পরিবার। গ্রামীণ দরিদ্র মানুষের স্বাস্থ্য সেবার জন্য সাংবাদিক ও গবেষক ড. শেখ মেহেদী হাসানের উদ্যোগে ২০২০ সালের ২৮ জুলাই কমিউনিটি ক্লিনিক স্থাপনের সরকারি অনুমোদন পায়। নির্মাণের অনুমতির পর ২০২১ সালের ১৬ আগস্ট সরকারি প্রকৌশলী, স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ও ঠিকাদার সার্ভেয়ারের মাধ্যমে দানকৃত জমি চিহ্নিত করতে গেলে কার্তিক মুখার্জির পুত্র বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন সাতক্ষীরা জেলা কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক সৃষ্টিধর মুখার্জি ওরফে সুমন মুখার্জি  ও পয়াসর মুখার্জি বাধা দেন। 

ক্লিনিকের জন্য দানকৃত জমি কেনা হয় স্থানীয় শ্রী বলায় কৃষ্ণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছ থেকে ১৯৯৬ সালে। জমির সকল বৈধ কাগজপত্র থাকার পরও মৃত বলায় কৃষ্ণর পুত্র সুকুমার বানার্জির সমস্ত সম্পত্তি নিয়ে সাতক্ষীরা বিজ্ঞ যুগ্ম জজ আদালত ২ এ দেওয়ানী মামলা (মামলা নম্বর ৮১/২০) করেন প্রতিবেশী কার্তিক চন্দ্র মুখার্জি। মামলার অধীন দানকৃত জমিও রয়েছে বলে তিনি দাবি করেন। ইতোপূর্বে বেউলা শ্যামা মন্দিরের জমির দলিল জাল করে স্থানীয় জোবায়ের-এর কাছে বিক্রির চেষ্টা করেন তিনি। এজন্য মন্দিরের পুরোহিত পদ থেকে তাকে স্থায়ীভাবে বিতাড়িত হতে হয়।

কার্তিক মুখার্জি সাতক্ষীরা সিভিল সার্জন ডা. মো. হুসাইন শাফায়াত ও উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সুদেষ্ণা সরকার বরাবর ‘অবৈধভাবে কমিউিনিটি ক্লিনিক নির্মাণ প্রসঙ্গে’ শিরোনামে এক লিখিত আবেদন করেন। জনস্বার্থবিরোধী অবাঞ্চিত আবেদনপত্রের তদবির ও তদারকি করেন তার পুত্র সুমন মুখার্জি ও কন্যা চৈতালী মুখার্জি। ওই আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে সিভিল সার্জন ২০২০ সালের ২৯ নভেম্বর সহকারী কমিশনার (ভ‚মি) এবং সাবরেজিস্ট্রার, আশাশুনির কাছে সংশ্লিষ্ট জমির বৈধতা যাচাইয়ের জন্য চিঠি দেন। উভয় অফিস দানকৃত জমির বৈধতা নিশ্চিত করে। সাব-রেজিস্ট্রার অফিস একই সালে ৭ ডিসেম্বর  (স্মারক নং ৪৫১) এক প্রতিবেদনে উল্লেখ জমি দাতার পৈত্রিক সূত্রে বৈধ মালিক এবং তার ৮শতক জমি দান বৈধ বলে উলে­খ করেছেন। 

কার্তিক মুখার্জির বাড়িতে ২০২১ সালের ১৮ ফেব্রæয়ারি গভীর রাতে মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতাবিরোধী জামায়াত-শিবির এবং নাশকতা মামলার আসামিদের নিয়ে এক সভা হয়। ওই সভায় উপস্থিত ছিলেন আশাশুনি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শম্ভুজিৎ মন্ডলসহ জামায়াতের অর্ধশত নেতাকর্মী।