শেষ মুহূর্তে সরগরম যশোরের মুদি দোকান

এখন সময়: বুধবার, ২৪ জুলাই , ২০২৪, ১২:২৫:০০ এম

 

নিজস্ব প্রতিবেদক: দেখতে দেখতে চলে এসেছে খুশির ঈদ। এখন শুধুমাত্র চাঁদ দের্খা অপেক্ষার পালা। আজ চাঁদ দেখা গেলে কাল পবিত্র ঈদুল ফিতর। আর এদিন চাঁদ দেখা না গেলে আগামী পরশু অনুষ্ঠিত হবে বর্ণিল এই উৎসবটি। ফলে শেষ মুহূর্তে যশোর শহরের মুদি দোকানে জমেছে উপচেপড়া ভিড়। ক্রেতারা জানান, এবছর চিনি ও মসলার মূল্য অনেক বেশি।

শহরের বড়বাজারসহ অন্যান্য বাজার ঘুরে দেখা যায়, সেমাই, চিনি ও মসলার অস্থায়ী দোকান বসেছে।  বিক্রিও বেশ ভালো হচ্ছে।  ঈদের দিনের খাদ্য সামগ্রী কিনতে ব্যস্ত সবাই। শহরের বাজারে এবার চিনির দাম অনেক বেশি। প্রতি কেজি দেশি-বিদেশি চিনি ১৪০ টাকা কেজি। 

বাজারে গরুর মাংসের দামও বেড়েছে। প্রতি কেজি গরুর মাংসের দাম  টাকা থেকে ৭৫০ টাকা। ১১০০ টাকা থেকে ১২০০ টাকা কেজি খাশির মাংস।  প্রতি কেজি ব্রয়লার মুরগি ২২০ থেকে ২৩০ টাকা কেজি। ৩৩০ টাকা কেজি সোনালি মুরগি।

বাজারে মসলার দাম অনেক বেশি। প্রতি ১শ’ গ্রাম এলাচ ২৮০ টাকা থেকে ৪০০ টাকা। ৫০ টাকা ১শ’ গ্রাম দারুচিনি। ১শ’ গ্রাম লবঙ্গ ২০০ টাকা। ১০০ থেকে ১২০ টাকা ১শ’ গ্রাম জিরা। ১শ’ গ্রাম কিচমিচ ৫০ থেকে ৬০ টাকা। প্রতি কেজি পেঁয়াজ ৬০ টাকা কেজি। প্রতি কেজি দেশি রসুন ১৮০ টাকা। ২২০ থেকে ২৪০ টাকা কেজি আমদানিকৃত রসুন। ২৫০ থেকে ২৮০ টাকা কেজি আদা।

বাজারে ভোজ্য তেলের দাম অপরিবর্তিত আছে। সরকার নির্ধারিত দামে পাওয়া যাচ্ছে ভোজ্য তেল।  প্রতি কেজি সয়াবিন তেল ১৬৫ টাকা। ১৪০ টাকা সুপার পাম তেল। সাধারণ পাম তেল ১৩০ টাকা।

প্রতি প্যাকেট লাচ্ছা সেমাই ৪৫ থেকে ৫০ টাকা। ১৫০ টাকা থেকে ১৬০ টাকা কেজি খোলা লাচ্চা সেমাই। স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত খোলা সেমাই মানভেদে ৮০০ টাকা কেজি দামে বিক্রি হয়। ২৫ টাকা প্যাকেট রেশমি সেমাই। বিভিন্ন কোম্পানির প্যাকেটজাত পোলাওয়ের চাল ১৩৫ থেকে ১৬০ টাকা। ৭৫ টাকা থেকে ১২০ টাকা কেজি খোলা পোলাওয়ের চাল।