ই-পেপার ফটোগ্যালারি আর্কাইভ মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর , ২০২১ ● ১১ কার্তিক ১৪২৮

বেনাপোল সীমান্তের ত্রাস আকুল আটক হওয়ায় মিষ্টি বিতরণ

Published : Friday 03-September-2021 23:00:00 pm
এখন সময়: মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর , ২০২১ ১৫:৪৬:০১ pm

শেখ কাজিম উদ্দিন, বেনাপোল : বেনাপোল সীমান্তের ত্রাস মুখোশধারী সন্ত্রাসী অস্ত্র মাদক হুন্ডি ও স্বর্ণ চোরাকারবারি আকুল বাহিনী প্রধান আকুল হোসাইন ঢাকায় ৮টি আধুনিক অস্ত্রসহ আটক হওয়ায় এলাকার জনমনে স্বস্তির নি:শ^াস বইছে। খুশিতে শুক্রবার দিনব্যাপী মিষ্টি বিতরণ ও মিষ্টিমুখ করেছে শান্তিপ্রিয়  বেনাপোলবাসী।
বেনাপোল পৌর স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি জুলফিকার আলী মন্টু জানান, দীর্ঘদিন ধরে শতাধিক স্কুল কলেজ পড়–য়া ছেলেদের নিয়ে একটি সন্ত্রাসী বাহিনী তৈরি করে বেনাপোল শার্শা এলাকায় সন্ত্রাসী চাঁদাবাজি টেন্ডারবাজি ছিনতাই, অপহরণসহ বিভিন্ন জঘন্যতম অপরাধের রামরাজত্ব কায়েম করে চলছিলো আকুল। তার নেতৃত্বে সীমান্তের হুন্ডি ও স্বর্ণ কারবারিদের জিম্মি করে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে কেড়ে নেওয়া হয়েছে কোটি কোটি টাকার স্বর্ণ ও হুন্ডির টাকা। প্রতিনিয়ত তার বাহিনী কর্তৃক ছিনতাই অপহরণের মতো ঘটনা ঘটলেও কেউ তার উপর ছড়ি ঘোরাতে পারেনি। মাথার উপর বেনাপোল পৌর সভার শীর্ষ এক জনপ্রতিনিধির ছায়া থাকায় দিনদিন সে বেপরোয়া থেকে বেপরোয়া হয়ে চলতে থাকে। অস্ত্র কেনা-বেচা, হুন্ডি ও স্বর্ণচোরাচালান, প্রতœতাত্ত্বিক মূর্তি, তক্ষক ও পিলার প্রতারণা ব্যবসা করে রাতারাতি কোটিপতি বনে যাওয়াসহ বিপুল পরিমাণের বিত্ত-বৈভবের মালিক হয় আকুল । হঠাৎ আকুল ঢাকায় গোয়েন্দা পুলিশের হাতে ৪ সহযোগীসহ আটক হওয়ার খবরে বেনাপোল-শার্শাবাসীর মনে ফিরে এসেছে স্বস্তির নি:শ^াস। যেকারণে শুক্রবার দিনব্যাপী বেনাপোলে মিষ্টি বিতরণ ও মিষ্টি মুখ করেছেন শান্তিপ্রিয় এলাকাবাসী।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে বেনাপোল বাজারের জনৈক ব্যবসায়ী বলেন, দীর্ঘদিন ধরে আকুলসহ আকুল বাহিনীর সদস্যরা বাজার ব্যবসায়ীদের জিম্মি করে চাঁদাবাজি করে আসছিল। বিগত কয়েক বছর পূর্বে বেনাপোল বাজারের শাহাজাহান মার্কেটের একটি দোকান ঘর জবর দখল করে সেখানে চলতো তার রাজনৈতিক অফিস নামের সকল নরকজগতের জঘন্যতম কর্মকান্ড। কথিত আছে সেই কক্ষের কোন এক প্রান্তে বা পাশাপাশি দুই স্বর্ণবহনকারিকে অপহরণ করে তাদের কাছ থেকে স্বর্ণের চালান ছিনতাই করে নিয়ে তাদেরকে মানসিকভাবে অত্যাচার করা হয়েছিলো, অবশেষে হত্যা করত: লাশ দুইটি গুম করে ফেলা হয়। ওইদিন তাদের আত্মচিৎকারে এলাকার বাতাস ভারি হয়ে উঠলেও পথচারিরা কেউ টু-শব্দটি করতে পারেনি। যা নিয়ে গুঞ্জনে কয়েক বছর পূর্বে গোয়েন্দা পুলিশের একটি বিশেষ টিম কেবল সেঘরটি খুড়াখুড়ি করেছিলেন। কথাছিলো আবারো ওই ঘরের আশেপাশে খুড়ে লাশের সন্ধান নেওয়া হবে। যা আদৌ আলোর মুখ দেখেনি।
বেনাপোল পোর্ট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মামুন খান বলেন, আকুল হোসাইনের নামে বেনাপোল পোর্ট থানায় বিষ্ফোরক, মারামারি ও দ্রুত বিচার আইনে মামলা আছে। সর্বশেষ সে গত ১ সেপ্টেম্বর-২০২১, ৮টি পিস্তল, ৮ রাউন্ড গুলি ও ১৬ টি ম্যাগজিন নিয়ে ঢাকার দারুস সালাম থানা এলাকায় ৪ সহযোগীসহ আটক হয়।
 



আরও খবর