ই-পেপার ফটোগ্যালারি আর্কাইভ শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর , ২০২১ ● ২ আশ্বিন ১৪২৮

‘একে একে নিভিছে বাতি’

Published : Saturday 31-July-2021 22:59:35 pm
এখন সময়: শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর , ২০২১ ১৪:০৬:৩৫ pm

আমাদের সকলের জন্ম ৪০ দশকের প্রথম,মধ্য ও শেষ ভাগে। হয়ত একজন আরেক জনের থেকে ৩, ৪, ৫ বা ৬ বছরের বড় অথবা ছোট। আবু সাঈদ সর্বজ্যেষ্ঠ তারপর যথাক্রমে আলী আকবর, খালেদুর রহমান টিটো, জীবন বোস ও শফিকউজ্জামান। আমরা সকলেই সমমনা এবং ক্রীড়া, সাংষ্কৃতিক ও সামাজিক অঙ্গণের মানুষ। সকলেই যশোর জেলা ক্রীড়া সংস্থা, যশোর ইনস্টিটিউট, যশোর ক্লাব ইত্যাদি সংগঠনের কার্য নির্বাহী কমিটির সদস্য ছিলাম। সম্পর্ক ছিল ভাই ভাইয়ের মত, আস্তে আস্তে বন্ধুর মত। এ কজনের মধ্যে টিটো সরাসরি রাজনীতি করলেও বন্ধুদের ওপর কখনো প্রভাব বিস্তারের চেষ্টা করেনি। সামাজিক সংগঠনের বাইরে আমাদের আড্ডার স্থান ছিল মধু সুইটস, এখানে আমরা প্রত্যহ সন্ধ্যায় একত্রিত হয়ে চা সিঙ্গাড়া খেতে খেতে রাজা উজির মারতাম মানে বিক্ষিপ্ত গল্প করতাম। মধু সুইটসের মালিক মধুদা তিনিও আমাদের সমমনা ছিলেন, আমাদের একসাথে বসার সুবিধার্থে পাশাপাশি দুটি টেবিল নির্ধারণ করে দিয়েছিলেন। মধুদার মৃত্যুর পর তার ছেলে তাপস সাহা ও বৌমা ব্যবসার হাল ধরে, বছর দুয়েকের মধ্যে ব্যবসা বন্ধ হয়ে যায়। তবে আমাদের আড্ডার যেন ব্যাঘাত সৃষ্টি না হয় তার জন্য তাপস নিজের বাড়ির বেসমেন্টে আমাদের বসার জন্য চেয়ার-টেবিল টিভি ফ্যান ইত্যাদি দ্বারা সজ্জিত করে বসার ব্যবস্থা করে। আমাদের আড্ডা অদ্যাবধি অব্যাহত আছে। প্রতিবছর আমরা ঈদ পুনর্মিলনী, বার্ষিক বনভোজন, নববর্ষ উদযাপন ও জন্মদিন ইত্যাদির আয়োজন করে থাকি। আমাদের এ আড্ডা পরিবারের মধ্যে ইতোমধ্যে হারিয়েছি আব্দুল হাই, হরেন দাস, লুৎফুল কামাল জ্যোতি, ফারুক সিদ্দিকী, শেখ নাসির উদ্দিন, আলতাফ, সালাউদ্দিন সিদ্দিকী, এনামুল চৌধুরী, ফজলু, চিনে, শেখ আব্দুল মান্নান, আব্বাস উদ্দিন হারুন, ইকবাল মাহমুদ বালু, সমীর হালদার, আবু সাঈদ, আলী রেজা রাজু, জীবন বোস, বালি মগরেব, ভবানী ব্যানার্জী, তরিকুল ইসলাম, খালেদুর রহমান টিটো এবং আজ ৩১ জুলাই  হারালাম আলী আকবরকে।
ছবির ৫ জন হলো শফিক, আলী আকবর, টিটো, জীবন ও সাঈদ, এরমধ্যে একমাত্র এ হতভাগাই অনেক স্মৃতি নিয়ে জীবিত।
আমি সকল বন্ধু যারা না ফেরার দেশে চলে গেছে তাদের রুহের মাগফেরাত/আত্মার শান্তি কামনা করছি। সাথে সাথে সংশ্লিষ্ট সকলের পরিবারের প্রতি সমবেদনা ও শোক জ্ঞাপন করছি।
(ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব শফিকউজ্জামানের ফেসবুক ওয়াল থেকে)



আরও খবর