ই-পেপার ফটোগ্যালারি আর্কাইভ শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর , ২০২১ ● ২ আশ্বিন ১৪২৮

সামাজিক দায়বদ্ধতায় বিবর্তন যশোর

Published : Saturday 31-July-2021 13:18:48 pm
এখন সময়: শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর , ২০২১ ১৩:৪৬:০৪ pm

দীপংকর বিশ্বাস 
বিবর্তন যশোরের নাট্যকর্মীরা গত বছর মার্চ মাসে করোনা শুরু থেকে এযাবৎ এই এক বছর তিন মাসে সর্বদা চেষ্টা করেছে অস্বচ্ছল এবং করোনা রুগির পাশে থেকে সেবা প্রদান করার। এই সময় কালে কখনও খাদ্য সহায়তা, কখনও বস্ত্র বিতরণ, রক্ত দান, করোনা প্রতিরোধে হ্যান্ড স্যানিটায়জার, মাস্ক বিতরণ আর এখন করোনা রোগির সেবায় অক্সিজেন সিলিন্ডার পরিষেবার কাজ করছে। যাদের সারা বছর কাটে মঞ্চে অভিনয় করে সমাজের অসংগতি খেটে খাওয়া মানুষের সামনে তুলে ধরা সেই মঞ্চ কর্মীরা আজ রাস্তায় নেমেছে সেই খেটে খাওয়া মানুষ গুলো যাতে একটু ভালো থাকে তার চেষ্টায়। সাথে আছেন বিবর্তন যশোরের দেশে ও দেশের বাইরে অসংখ্য সুহৃদ ও শুভাকাঙ্খী। তাদেরকে সাথে নিয়ে ও তাদের অনুপ্রেরনায় বিবর্তন পৌছে যাবে তার অভিষ্ট লক্ষে। গত বছর মার্চ মাসে করোনা সংক্রমন শুরু হওয়ার পরে সরকার ঘোষিত লকডাউনের প্রথমেই সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট মাস্ক ও স্যানিটায়জার বিতরণ করে তার সাথে বিবর্তন যশোর সরব ভুমিকা পালন করে। এরপরে বিভিন্ন সময় সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, যশোর জেলা দুস্থ মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করে তার সাথেও বিবর্তন যশোর সম্মিলিতভাবে কাজে অংশ নেই। বিবর্তন সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট বাদেও নিজস্বভাবে বিভিন্ন সময়ে তাদের কর্মী ও যশোরের বিভিন্ন দুস্থ মানুষের সেব্য়া খাদ্য সহায়তা প্রদান করেছে বা এখনও করছে। বিবর্তন যশোর এবছরের ১৯ জানুয়ারি তার যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয় শাখার সহযোগিতায় যশোরের চৌগাছা উপজেলার জগহাটী গ্রামের ১২০ পরিবারের প্রায় ৪৫০ জন শিশুর মাঝে বস্ত্র ও মাস্ক বিতরণ করেন। বিবর্তন করোনা প্রতিরোধ সচেতনায় শহরের বিভিন্ন অংশে কয়েকবার বিভিন্ন সময়ে করোনা প্রতিরোধে সচেতনা বৃদ্ধি রোধে প্রচার ও মাস্ক বিতরণ করে যা শুরু হয় ২০২০ সালের ১৬ ডিসেম্বর বিজয়ের দিনের থেকে স্মৃতি স্তম্ভের পাদদেশ থেকে। এছাড়াও করোনা প্রতিরোধে বিতরণের জন্য যশোরের সুযোগ্য মাননীয় জেলা প্রশাসকের নিকট ২৩ ডিসেম্বর আমরা মাস্ক প্রদান করি। এছাড়ও রোগ প্রতিরোধে এসময় আমরা হোমিও ক্যাম্প পরিচালনা করে থাকি। করোনা কালিন সময়ে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের উদ্যোগে গত বছর এবং এবছরও প্রান্তিক চাষীর ধান কাটার কাজে বিবর্তন যশোর অগ্রনী ভ’মিকা পালন করে। আমরা এবছরের ৭ মে নিশ্চিন্তপুর বুদ্ধি প্রতিবন্ধী ও অটিস্টিক বিদ্যালয় এবং পুর্নবাসন কেন্দ্র, ঝিকরগাছার শিশুদের মাঝে ঈদ বস্ত্র প্রদান করি। এর মাঝে আমাদের অনেক সাথী শারিরীকভাবে অসুস্থ হয়েছে, চিকিৎসা শেষে আবার অংশ নিয়েছে বিভিন্ন কর্মসূচিতে। এবছর করোনা সংক্রমনের প্রথম পর্যায় থেকে আমাদের মাঝে চিন্তা আসে আর কিভাবে আমরা এই সময়ে মানুষের পাশে দাঁড়াতে পারি তারই ফলশ্রুতিতে চলছে আমাদের এখন এই অক্সিজেন সিলিন্ডার পরিষেবা। আমরা প্রথমে আমাদের ক্ষুদ্র চেষ্টায় মাত্র ৩টি অক্সিজেন সিলিন্ডার নিয়ে সেবা প্রদানে এগিয়ে আসি এবং দিন ঘুরতে ঘুরতে আজকের দিনে আমরা আমাদের সুহৃদ ও শুভাকাংখিদের সহায়তায় ৫৫টি অক্সিজেন সিলিন্ডার নিয়ে করোনা রোগির সেবার কাজ করে যাচ্ছি। আমাদের কর্মীরা রাত এবং দিনে যে কোন সময়ে এই পরিষেবা দিতে বদ্ধপরিকর। আমরা এই অল্প কয়দিনে ১৩০ জন করোনা আক্রান্ত রোগিকে ৩৭২টি অক্সিজেন সিলিন্ডার পরিষেবা দিতে পেরেছি। আগামী দিনে আমরা যাতে আমাদের পরিষেবা নিয়ে আরো মানুষের পাশে দাঁড়াতে পারি তার জন্য আমাদের সুহৃদ ও শুভাকাঙ্খীদের কাছে সহায়তার আহবান করে চলেছি। এরই মাঝে আশার আলো আমরা ডিসেম্বর, জানুয়ারি ও মার্চ মাসে যশোর এবং রাজশাহীতে আমাদের প্রাণের যে কাজ সেই নাটক মঞ্চস্থ করেছি। সকলের মতো আমরাও আশা করি কোন একদিন আবার নতুন সূর্য উঠবে যে সূর্যের আলোয় আমরা করোনা মুক্ত পৃথিবী পাবো, আমরা আবার ফিরবো আমাদের চিরচেনা মঞ্চে, খেটে খাওয়া শ্রমজীবী মানুষের মাঝে আর গাইবো জীবনের জয়গান।

সাধারণ সম্পাদক

বির্বতন যশোর।
 


 



আরও খবর