ই-পেপার ফটোগ্যালারি আর্কাইভ বুধবার, ২৭ অক্টোবর , ২০২১ ● ১২ কার্তিক ১৪২৮

ডুমুরিয়ায় জোয়ারে প্লাবিত দুইশ’ পরিবার

Published : Friday 28-May-2021 22:28:36 pm
এখন সময়: বুধবার, ২৭ অক্টোবর , ২০২১ ২২:২৫:২২ pm

ডুমুরিয়া (খুলনা) প্রতিনিধি :
বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাবে এখনো উত্তাল নদ-নদী। জোয়ারের পানি শুক্রবারও বইছে বিপদ সীমার উপর দিয়ে। বাঁধ ভাঙা ও জোয়ারের উপচে পড়া পানিতে গত তিন দিন যাবত হাবুডুবু খাচ্ছে খুলনার ডুমুরিয়া উপকুলবর্তী প্রায় দুই শতাধিক পরিবার।
খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলার উপকূলবর্তী এলাকার নদ-নদীতে ৪ থেকে ৫ ফুট পর্যন্ত পানি বৃদ্ধি পায়। বিভিন্ন জায়গায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের বেড়িবাঁধ ভেঙে বা উপচে ভিতরে হু হু করে পানি প্রবেশ করে। গত তিনদিন যাবৎ পানিবন্দী ডুমুরিয়া সদর থেকে শুরু করে উপকূলবর্তী বাশতলা, লতা, বকুলতলা, তেলিখালী, চাঁদগড় এলাকার প্রায় অর্ধসহ¯্রধিক পরিবার। উপজেলা প্রশাসন বা জনপ্রতিনিধিরা ঘটনাস্থলগুলোতে একাধিকবার পরিদর্শন করলেও পানিবন্দি থেকে এখনো মুক্ত হননি তারা। কারো ঘরের মটকায় পানি কারো বা ঘরের মধ্যে কোমরপানি। মানুষের খাদ্য, গোবাদি পশুর খাদ্য (বিছালী) সবই লোনা পানিতে বিলিন হয়েছে তাদের। গতকাল শুক্রবার দুপুরের জোয়ারে বকুলতলা এলাকায় যেয়ে এমন একটি দৃশ্য দেখা যায়। সেখানে অভিজিৎ বিশ^াস, সদানন্দ বিশ^াসসহ ১০টি পরিবারের বসত ঘর সম্পূর্ণ পানির নিচে। রাস্তার উপর বা খোলা আকাশের নিচে অসহায় মানবেতর জীবন কাটছে তাদের। এ বিষয়ে ভান্ডারপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান হিমাংশু বিশ^াস বলেন, বকুলতলা ও তেলিখালী মিলে প্রায় ২৫/৩০টি পরিবার পানিবন্দি হয়ে আছে। সকালে (শুক্রবার) প্রায় দুই শতাধিক এলাকাবাসী নিয়ে বকুলতলা এলাকায় বাঁধ মেরামত করেছি। এছাড়া ঝুঁকিপূর্ণ এলাকায় বাঁধের উপর দিয়ে মাটি বস্তাবন্দি করে উঁচু করেছি। তিনি বলেন, বকুলতলা এলাকায় প্রায় দেড় যুগ আগে পানি উন্নয়ন বোর্ডের দেয়া একটি বিকল্প বাঁধ গত ৩ মাস পূর্বে অপসারণ করার কারণে বাঁধটি অত্যান্ত দুর্বল হয়ে পড়ে। ফলে পানির চাপে বাঁধটি ভেঙে গেছে।



সর্বশেষ সংবাদ
আরও খবর