ই-পেপার ফটোগ্যালারি আর্কাইভ সোমবার, ১৮ অক্টোবর , ২০২১ ● ২ কার্তিক ১৪২৮

সাতক্ষীরার হিমসাগর যাচ্ছে রোমে

Published : Friday 21-May-2021 22:23:31 pm
এখন সময়: সোমবার, ১৮ অক্টোবর , ২০২১ ০০:০৯:১৬ am

শাকিলা ইসলাম জুঁই,সাতক্ষীরা :
সাতক্ষীরার ব্রান্ড বিখ্যাত ৫টন হিমসাগর আম শুক্রবার ইটালির রোমে রপ্তানি হচ্ছে। মেসার্স ইসলাম ট্রেডার্স এর মাধ্যমে এই আম বিদেশে যাচ্ছে। সাতক্ষীরা সদর উপজেলার মাধবকাটি বলাডাঙ্গা  গ্রামের হাফিজুর রহমানের বাগান থেকে এই আম সংগ্রহ করা হয়।
১৪টি বায়ার কোম্পানি জেলার প্রান্তিক পর্যায় থেকে এসব আম সংগ্রহ করছেন। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর রপ্তানিকৃত আমের জন্য সাড়ে ৩শ’ চাষিকে আলাদা প্রশিক্ষণ দিয়েছেন।
শুক্রবার দুপুরে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামাল উপস্থিত থেকে রপ্তানি কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন এবং বাগান পরিদর্শন করে আমের গুণগত মান দেখেন।
অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক নূরুল ইসলাম,কলারোয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার জুবায়ের হোসেন চৌধুরী, জেলা বিপণন কর্মকর্তা সালেহ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ, উপজেলা কৃষি অফিসার রফিকুল ইসলাম, উত্তরণ পরিচালক শহিদুল ইসলাম, সফল প্রকল্পের ম্যানেজার ইকবাল হোসেন, সলিডারিডাড নেটওয়ার্ক এশিয়া’র প্রোগ্রাম অফিসার মোস্তাফিজুর রহমান প্রমূখ।
জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, এবার জেলায় ৪হাজর ১শ’ হেক্টর জমিতে ৪০ হাজার মেট্রিক টন উৎপাদনের লক্ষমাত্রা ধরা হয়েছে। এরমধ্যে ৫০ টন বিভিন্ন জাতের আম বিদেশে রপ্তানির কথা রয়েছে।
আম চাষী এসএম লিয়াকত হোসেন, রপ্তানিকারকের প্রতিনিধি শাওন হোসেন ও আম প্রস্তুত কারক শ্রমিকরা জানান, এবার মৌসুমী বর্ষা না হওয়ায় আমের সাইজ একটু ছোট হয়েছে। তার পরও প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হওয়ায় চাষীরা ক্ষতির মুখে পড়েননি।
গত বছর ২০ মে আম্পানের কারণে জেলার আম চাষীরা দারুনভাবে আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়ে। মৌসুম শেষ হওয়া পর্যন্ত যদি কোনো ধরনের প্রাকৃতিক দুর্যোগ দেখা না দেয় তাহলে জেলার চাষীরা এবার হয়তো গত বছরের ক্ষতি কিছুটা হলেও পুষিয়ে নিতে পারবে।
সাতক্ষীরা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক নুরুল ইসলাম জানায়, প্রথম দিনেই এনএইচবি কর্পোরেশন ও তাশফিক ইন্টারন্যাশনালের মাধ্যমে ৫ টন হিমসাগর আম ইতালির রোমে যাচ্ছে। পর্যায়ক্রমে আরও ল্যাংড়া ও আমরুপালি আমও রপ্তানি হবে।
রপ্তানিকারকরা নায্যমুল্যে আম ক্রয় করে সকল প্রস্তুতি শেষে বিদেশে পাঠাচ্ছেন। ফলে চাষী ব্যবসায়ী উভয় লাভবান হচ্ছে, দেশের রপ্তানী আয়ও হচ্ছে। স্বাদে গুণে ও মানে সেরা হওয়ায় এ জেলার আম ব্রান্ড হিসেবে বিদেশে যাচ্ছে এবং তা অব্যাহত থাকবে বলে জানালেন জেল প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামাল।
এরআগে গত ৯মে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর ও এফএও এর যৌথ কারিগরি সহায়তায় জার্মানীতে রপ্তানীর উদ্দেশ্যে সাতক্ষীরা ছাড়ে একহাজার কেজি গোবিন্দভোগ জাতের আম।
চলতি মৌসুমে সাতক্ষীরার মুম্বাই, গোবিন্দভোগ, গোপালভোগসহ আগামজাত আম ১ মে, হিমসাগর আম ২১ মে ও ল্যাংড়া আম ১ জুন থেকে পাড়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। রাজশাহী ও চাঁপাইনবাবগঞ্জের চেয়ে অন্তত ১৫ দিন আগে পাড়ার সুবিধা থাকায় সাতক্ষীরার আম রপ্তানিতে বিশেষ গুরুত্ব পায়।