ই-পেপার ফটোগ্যালারি আর্কাইভ শুক্রবার, ২২ অক্টোবর , ২০২১ ● ৭ কার্তিক ১৪২৮

সুন্দরবনের মৌয়ালকে নির্যাতনের অভিযোগ

Published : Saturday 17-April-2021 20:56:25 pm
এখন সময়: শুক্রবার, ২২ অক্টোবর , ২০২১ ০৯:০৯:৩৪ am

শরণখোলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি : চাহিদা মতো মধু ঘুষ না পেয়ে পাঁচ মৌয়ালকে আটক করে তাদের উপর নির্মম নির্যাতন চালানোর অভিযোগ উঠেছে বনরক্ষীদের বিরুদ্ধে। শুক্রবার বিকেলে পুর্ব সুন্দরবনের শরণখোলা রেঞ্জের কোকিল মনি টহল ফাঁড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

নির্যাতিত মৌয়ালরা হচ্ছে, সুন্দরবন সংলগ্ন উপজেলার সোনাতলা গ্রামের বাসিন্দা শহিদুল হাওলাদার (৩৩), ছলেমান হাওলাদার (২৯), রফিকুল গাজী (৪১), আফজাল হোসেন(৪৩) ও রসুলপুর গ্রামের বাসিন্দা বেল্লাল হোসেন (২৭)। এছাড়া বনরক্ষীদের কাছে মৌয়ালদের জমা রাখা ৫০ মণ মধু, ৩০ হাজার টাকার বাজার ও নগদ ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা নির্যাতনকারীরা আত্মসাৎ করেছেন বলে একই দিন রাতে মুঠো ফোনে জানতে পেয়ে মৌয়ালদের স্বজনরা সাংবাদিকদের স্মরণাপন্ন হয়ে ঘটনার বর্ণনা দেন।

তবে, অভয়ারণ্যে এলাকায় প্রবেশ করে অবৈধভাবে বনজ সম্পদ আহরণের অভিযোগে ওই মৌয়ালদের আটক করা হয়েছে বলে দাবি করেছে বন বিভাগ।

মৌয়ালের স্ত্রী সাবিনা ইয়াসমিন, নাছিমা বেগম, ও খাদিজা বেগমসহ কয়েকজন  বলেন, ১এপ্রিল ওই মৌয়ালরা সুন্দরবনের শরণখোলা ষ্টেশন হতে ১৫ দিনের পাস (অনুমতি) নিয়ে সুন্দরবনে মধু আহরণের উদ্দেশ্য যায় তারা। পারমিট নবায়নের জন্য ১৫এপ্রিল তারা বন বিভাগের কোকিলমনি টহল ফাঁড়িতে যায়।

প্রতি বছরের মতো ওই টহল ফাঁড়িতে আগে থেকেই এ বছরও মৌয়ালরা তাদের আহরিত মধু, নিত্য প্রয়োজনীয় মালামাল ও নগদ টাকা জমা রাখেন। সে জন্য কোকিলমনি টহল ফাঁড়ির বনরক্ষীদের এক কেজি করে মধু দেয়ার চুক্তি হয় ।

কিন্তু ওই টহল ফাঁড়ির (ভারপ্রাপ্ত) কর্মকর্তা ফরেষ্টার আবুল হোসেনের নেতৃত্বে এবার মৌয়ালদের কাছে দুই কেজি করে মধু দাবি করেন বনরক্ষীরা। এনিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে বনরক্ষী রিয়াজ তার সহকর্মীদের নিয়ে মৌয়াল শহিদুলকে আটক করে মারধর করতে থাকে। এ দৃশ্য দেখে সকল মৌয়ালরা মিলে তাকে উদ্ধার করার চেষ্টা চালায়। এ নিয় দ্ইু পক্ষের মধ্য হাতাহাতি হলে পার্শ্ববর্তী স্টেশনের কোস্টগার্ড সদস্যরা এসে পরিস্থিতি সামাল দেন।

পরে বনরক্ষীরা মৌয়ালদের পাঁচজনকে আটক করে পারমিট নিয়ে নেয় এবং তাদের হাতপা বেঁধে নির্যাতন করে । এছাড়া আহতদের চিকিৎসা বা খাবার দেয়া হয়নি। তাছাড়া বনরক্ষীদের কাছে জমা রাখা মৌয়ালদের মধু, মালামাল ও নগদ দেড় লাখ টাকা ফেরৎ না দিয়ে আত্মসাৎ করে নেয় বলে মুঠোফোনে অভিযোগ করেন এক মৌয়াল।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে বন বিভাগের কোকিল মনি টহল ফাড়ির কর্মকর্ত আবুল হোসেন (ফরেস্টার) দাবি করেন, মৌয়ালরা অভয়ারণ্যে এলাকায় ঢুকে গোলপাতা ও জ্বালানি কাঠ সংগ্রহ করায় তাদেরকে আটক করা হয় এবং বন আইনে মামলা দিয়ে কোটে চালান করা হয়েছে । তবে, মৌয়ালদের সকল অভিযোগ মিথ্যা।



সর্বশেষ সংবাদ
আরও খবর