ই-পেপার ফটোগ্যালারি আর্কাইভ বুধবার, ২৭ অক্টোবর , ২০২১ ● ১২ কার্তিক ১৪২৮

রমজানের শুরুতে বাজারে সবজির দাম বেড়েছে

Published : Thursday 15-April-2021 21:42:01 pm
এখন সময়: বুধবার, ২৭ অক্টোবর , ২০২১ ২২:২৬:৪৩ pm

মুর্শিদুল আজিম হিরু : রমাজানের শুরুতে বাজারে সবজির দাম বেড়েছে অনেক। এরমধ্যে কোনো কোনো সবজির দাম তিন থেকে চারগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। চাল, ডাল, পেঁয়াজ-রসুন, তেলের দাম আগের মত আছে। বৃহস্পতিবার যশোর শহরের বড়বাজার ঘুরে এমন তথ্য পাওয়া গেছে।

বাজারে শাক-সবজির দাম অনেক বেড়েছে। লকডাউনে পণ্যের সরবরাহ কম হওয়ায় দাম বেশি বলে জনিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। প্রতিকেজি বেগুন বিক্রি হয় ৯০টাকা। ২৫ টাকা কেজি বিক্রি হয় কুমড়া। প্রতিকেজি কুশি বিক্রি হয় ৫০ টাকা। ৬০ টাকা কেজি বিক্রি হয় ঢেঁঢ়স। প্রতিকেজি পটল বিক্রি হয় ৫০ টাকা। ৬০ টাকা কেজি বিক্রি হয় বরবটি। প্রতিকেজি পেঁপে বিক্রি হয় ২০ টাকা। ৮০ টাকা কেজি বিক্রি হয় উচ্ছে। প্রতিকেজি ডাটা বিক্রি হয় ২০ টাকা থেকে ২৫ টাকা। ৩০ টাকা কেজি বিক্রি হয় পুঁইশাক। প্রতিকেজি টমেটো বিক্রি হয় ৪০ টাকা থেকে ৫০ টাকা। ৬০ টাকা কেজি বিক্রি হয় কচুরলতি। প্রতিকেজি কলা বিক্রি হয় ২৫ টাকা থেকে ৩০ টাকা। ৫০ টাকা কেজি বিক্রি হয় মুলা। প্রতিকেজি শিম বিক্রি হয় ৬০ টাকা। ৩০ টাকা কেজি বিক্রি হয় সজনে। ২০ টাকা পিস বিক্রি হয় বাধা কপি।

অপরিবর্তিত আছে আলু, পেঁয়াজ-রসুন ও মরিচের দাম। পেঁয়াজের দাম কেজিতে ৫ টাকা বাড়লেও দুইদিনের ব্যবধানে দাম কমে গেছে। প্রতিকেজি দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হয় ৩০ টাকা থেকে ৩৫ টাকা। ৪০ টাকা থেকে ৬০ টাকা কেজি বিক্রি হয় রসুন। ১শ’২০ টাকা কেজি বিক্রি হয় আমদানিকৃত রসুন। প্রতিকেজি আলু বিক্রি হয় ১৫ টাকা। ৩০ টাকা থেকে ৪০ টাকা কেজি বিক্রি হয় মরিচ।

বাজারে দাম বাড়েনি ডালের। প্রতিকেজি দেশি মসুর ডাল বিক্রি হয় ১শ’ টাকা। ৬৫ টাকা থেকে ৭০ টাকা বিক্রি হয় আমদানিকৃত মসুর ডাল। প্রতিকেজি ছোলার ডাল বিক্রি হয় ৭০ টাকা থেকে ৭৫ টাকা। ৪৪ টাকা থেকে ৪৫ টাকা কেজি বিক্রি হয় বুটের ডাল। প্রতিকেজি মুগের ডাল বিক্রি হয় ১শ’ টাকা থেকে ১শ’৩৫ টাকা। ৬৮ টাকা থেকে ৭০ টাকা কেজি বিক্রি হয় চিনি।

বাজারে ভোজ্য তেলের দাম আগের মত আছে। প্রতিকেজি সয়াবিন তেল বিক্রি হয় ১শ’৩৩ টাকা ১শ’৩৫ টাকা। ১শ’২০ টাকা কেজি বিক্রি হয় সুপার পাম তেল। প্রতিকেজি পাম তেল বিক্রি হয় ১শ’১৫ টাকা।

বাজারে চালের দাম অপরিবর্তিত আছে। প্রতিকেজি স্বর্ণা চাল বিক্রি হয় ৪২ টাকা থেকে ৪৪ টাকা। ৫০ টাকা থেকে ৫২ টাকা কেজি বিক্রি হয় বিআর-২৮ ও কাজল লতা চাল। প্রতিকেজি বাশমতি চাল বিক্রি হয় ৬৬ টাকা থেকে ৭০ টাকা। ৫৬ টাকা থেকে ৬০ টাকা কেজি বিক্রি হয় মিনিকেট চাল। প্রতিকেজি বিআর-১০ চাল বিক্রি হয় ৪৮ টাকা থেকে ৫০ টাকা।

বাজারে মাছের দাম আগের মত আছে। প্রতিকেজি রুই-কাতলা মাছ বিক্রি হয় ১শ’৪০টাকা থেকে ২শ’২০টাকা। ১শ’৪০ টাকা থেকে ১শ৫০ টাকা কেজি বিক্রি হয় মৃগেল মাছ। প্রতিকেজি চিলবার কার্প মাছ বিক্রি হয় ১শ’ টাকা থেকে ১শ’২০ টাকা। ১শ’টাকা থেকে ১শ’২০ টাকা কেজি বিক্রি হয় তেলাপিয়া মাছ। প্রতিকেজি বড় ইলিশ মাছ বিক্রি হয় ১হাজার টাকা থেকে ১২শ’ টাকা।  ৫শ’টাকা থেকে ৬শ’ টাকা কেজি বিক্রি হয় মাঝারি সাইজের ইলিশ মাছ। প্রতিকেজি ছোট ইলিশ মাছ বিক্রি হয় ৩শ’টাকা।



সর্বশেষ সংবাদ
আরও খবর