ই-পেপার ফটোগ্যালারি আর্কাইভ সোমবার, ২৫ অক্টোবর , ২০২১ ● ৯ কার্তিক ১৪২৮

যশোরে ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণসহ তিন মামলায় ৫ জন রিমান্ডে

Published : Wednesday 11-August-2021 22:13:05 pm
এখন সময়: সোমবার, ২৫ অক্টোবর , ২০২১ ০৪:৪০:১৬ am

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোরে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণ, চাঁদা দাবিতে অপহরণ এবং অস্ত্র আইনের আলাদা তিন মামলার ৫ আসামির একদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত। বুধবার জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সাইফুদ্দীন হোসাইন রিমান্ড আবেদনের শুনানি শেষে এ আদেশ দিয়েছেন। আসামিরা হলো, সদরের জগমোহনপুর গ্রামের ফজলুর রহমানের ছেলে হাসানুর রহমান রহমী, উপশহর ই-ব্লকের শেখ শুকুর মাহমুদের ছেলে ইমরান হাসান ইমু, চৌগাছার দশপাখিয়া গ্রামের আলী ঢালী ওরফে খোকনের ছেলে রহমান ওরফে আবু তালিপ, পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া শহরের শহিদুল ইসলাম কবিরাজের ছেলে যশোর শহরের চাঁচড়া রায়পাাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পূর্ব পাশের মোতালেব হোসেন বাড়ির ভাড়াটিয়া রাহাত কবিরাজ এবং একই বাড়ির ভাড়াটিয়া মৃত নূর ইসলামের মেয়ে রওশনারা বেগম।

মামলার অভিযোগে জানাগেছে, চৌগাছার উত্তর কয়ারপাড়া গ্রামের দিপু কাজী চৌগাছা বাজারের কীটনাশক ব্যবসায়ী। একটি কোম্পানির ডিলারশিপ করে দেয়ার কথা বলে আসামি হাসানুর রহমান রহমী গত ২৭ জুন সন্ধ্যায় দিপুকে যশোর শহরের পালবাড়ি ডেকে আনে। এসময় হাসানুর রহমান রহমী তার মোটরসাইকেলের পিছনে উঠে শহরের বিভিন্নস্থানে ঘোরাঘুরি করে। এক পর্যায়ে শহরতলীর শেখহাটি বিশ্বাসপাড়ার জুয়েলের বাড়িতে আটক রেখে দুই লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবিতে মারপিট করে। তাছাড়া দিপুর কাছ থেকে একশ’ টাকা মূল্যের ৬টি অলিখিত স্টাম্পে স্বাক্ষর করিয়ে নেয় অপহরণকারীরা। পরদিন সকালে দিপুর মোবাইল ফোন দিয়ে তার ভাই মিঠুর মোবাইলে মুক্তিপণের টাকা নিয়ে আসতে বলে। এরই মধ্যে দিপুর ভাই মিঠু চৌগাছা থানা পুলিশকে অবহিত করে। পুলিশ প্রথমে ইমরান হোসেন ইমু এবং পরে হাসানুর রহমান রহমীকে আটক করে। একই সাথে দিপুকে উদ্ধারসহ অপহরণকারীদের একটি মোটরসাইকেল, দিপুর স্বর্ণের একটি আংটি ও ২০ হাজার টাকা জব্দ করা হয়। এ ঘটনায় দিপুর ভাই মিঠুর দায়ের করা মামলায় ইমু ও রহমীকে ৫দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে আবেদন করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা। বিচারক রিমান্ড আবেদনের শুনানি শেষে প্রত্যেকের ১ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

গত ১৯ জুলাই রাতে যশোর শহরের চাঁচড়া রায়পাড়ার মোতালেব হোসেন বাড়ি থেকে পাইপগান, বন্দুকের কার্তুজ ও বোমাসহ রাহাত কবিরাজ ও রওশনারা বেগমকে আটক করে পুলিশ। এই ব্যাপারে পুলিশ বাদী হয়ে আটক দুইজনের বিরুদ্ধে কোতয়ালি মডেল থানায় মামলা করে। তদন্ত কর্মকর্তা আটক দুইজনের ৫দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে আবেদন করেন। গতকাল রিমান্ড আবেদনের শুনানি শেষে বিচারক তাদের ১ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

যশোর সদরের চান্দুটিয়া গ্রামের এক প্রবাসীর স্ত্রীর সাথে প্রেমের সূত্র ধরে শারীরিক সম্পর্ক ও ভিডিও ধারণ এবং বিভিন্ন সময়ে নেয়া টাকা ফেরৎ চাওয়ায় মারপিট ও শ্লীলতাহানীর ঘটনায় থানায় মামলা হয়। পুলিশ ওই মামলায় আসামি রহমান ওরফে আবু তালিপকে আটক করে। তদন্ত কর্মকর্তা আসামি রহমান ওরফে আবু তালিপকে ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে আবেদন করেন। গতকাল বুধবার রিমান্ড আবেদনের শুনানি ১ দিন রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন।