ই-পেপার ফটোগ্যালারি আর্কাইভ সোমবার, ১২ এপ্রিল , ২০২১ ● ২৯ চৈত্র ১৪২৭

মহেশপুরে মাঠের পর মাঠ সবুজ ধানের ক্ষেত

Published : Friday 02-April-2021 21:18:01 pm
এখন সময়: সোমবার, ১২ এপ্রিল , ২০২১ ১৩:২৫:৪৪ pm

অসীম মোদক, মহেশপুর:
যেদিকে দু-চোখ যায় শুধু সবুজের সমরোহ,. বাতাসেই দুলছে  কচি ধানের সবুজ পাতা। কিছু জমিতে ধানের শীষ বের হতে শুরু করেছে। কয়েক  সপ্তাহের মধ্যে তা পুষ্ট হয়ে সোনালী রং ধারণ করবে। ফুটবে কৃষকের মুখে হাসি।
ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার বিভিন্ন মাঠ ঘুরে দেখা গেছে,মাঠের পর মাঠ জুড়ে সবুজ ধানের ক্ষেত। সবুজ ধানে স্বপ্ন বুনতে শুরু করেছে চাষিরা। গত বছরের তুলনায় এ বছর বোর ধানের আবাদ বেশি হয়েছে বলে জানিয়েছে কৃষকরা। ধানের দাম বেশি ও গো খাদ্য (বিচালির) দাম বেশি হওয়াতে ধান চাষ করেছে অনেকে।
কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের হিসেব অনুযায়ী, এ বছর বোরো ধানের আবাদে লক্ষ্যমাত্রার চেয়েও বেশি হয়েছে। এ বছর লক্ষ্যমাত্রা  নির্ধারণ করা হয়েছিল ১৬ হাজার ১১৩ হেক্টর, কিন্তু আবাদ হয়েছে  ১৮ হাজার ৫৭০ হেক্টর জমিতে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে ও বড় ধরণের কোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে ধানের উৎপাদনও অনেক ভালো হবে।
পৌর এলাকার পাতিবিলা গ্রামের কৃষক হজো মোল্লা জানান,প্রতি বছর ৭ থেকে ৮ বিঘা জমিতে ধানের আবাদ করে। কিন্তু ধানের দাম ভালো না  পাওয়ায় আমন চাষে ৪ বিঘা জমিতে ধান চাষ করেছিলাম। আমন চাষে ধানের ও গো খাদ্য (বিচালির) দাম বেশি হওয়ায় এ বছর ৭ বিঘা জমিতে বোর চাষ করেছি।
কৃষক নাসির উদ্দিন জানান, আমন ধানের বিচালির যে দাম দিয়ে কিনতে হয়েছে তাতে করে গরু পালনে হিমসিম খেতে হচ্ছে। এ জন্য  আমি এবার ২ বিঘা জমিতে বোর আবাদ করেছি।
মহেশপুর উপজেলা কৃর্ষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ হাসান আলী জানান, এ বছর বোরো ধানের আবাদ লক্ষ্যমাত্রার চেয়েও বেশি হয়েছে। আমন ধানের বাজার মূেল্য বেশি ও গো খাদ্য(বিচালির) দাম বেশি হওয়ায় কৃষকরা বোর চাষে বেশি ঝুকেছে বলে জানান।  তিনি আরও জানান আশা করা যায় বড় ধরণের কোন প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে ধানের উৎপাদনও অনেক ভাল হবে।



আরও খবর