ই-পেপার ফটোগ্যালারি আর্কাইভ সোমবার, ২৫ অক্টোবর , ২০২১ ● ৯ কার্তিক ১৪২৮

পিতৃহারা ছায়রা-আলভী-আন্নাফের দায়িত্ব নিলেন আলমগীর

Published : Wednesday 15-September-2021 20:51:37 pm
এখন সময়: সোমবার, ২৫ অক্টোবর , ২০২১ ০৫:২০:৪৩ am

খাজুরা (যশোর) প্রতিনিধি : যশোরের খাজুরায় পিতৃহারা ছায়রা, আলভী ও আন্নাফের লেখাপড়ার সব দায়িত্ব নিলেন তরুণ সমাজসেবক আলমগীর হোসেন। মানবিকতার এমন পরিচয় দেয়ায় এলাকাবাসীর প্রশংসায় এখন পঞ্চমুখ তিনি। আলমগীর হোসেন রাজনীতিতে প্রবেশ করে ইতোমধ্যে গোটা জহুরপুর ইউনিয়নে সাড়া ফেলেছেন। তিনি ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন প্রত্যাশী।

গত তিন বছর আগে ক্যান্সার রোগে ছায়রাদের বাবা রহমত আলী শেখ মারা যান। তিনি ওই ইউনিয়নের জহুরপুর গ্রামের শেখপাড়ার মৃত মোদাচ্ছের শেখের ছেলে। পিতৃহারা ছায়রা এখন পঞ্চম ও আলভী প্রথম শ্রেণিতে পড়ে। আর আন্নাফের বয়স তিন বছর। অভাব-অনটনের সংসারে তাদের লেখারপড়ার খরচ জোগাতে হিমশিমে পড়েন মা শাপলা বেগম। তিন সন্তানের লেখাপড়া নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েন তিনি। শ্বশুরের রেখে যাওয়া জরাজীর্ণ একটি টিনের ঘরে বসবাস করেন। আয়ের উৎস বলতে স্বামীর পৈতৃক ১০ শতক জমি। যা বর্গা দেয়া। জহুরপুর ওয়ার্ডে দরিদ্রদের মাঝে বস্ত্র বিতরণকালে আলমগীর হোসেন পিতৃহারা ওই সন্তানদের লেখাপড়ার যাবতীয় খরচ বহন ও সব ধরনের সহযোগিতার কথা উল্লেখ করেন।

শাপলা বেগম বলেন, ‘আলমগীর ভাই আমার সন্তানদের লেখাপড়ার সব দায়িত্ব নিয়েছেন। তার কাছে আমি কৃতজ্ঞ।’

ছায়রার দাদি বৃদ্ধা রাহেলা বিবি বলেন, ‘জীবনটা আমার দুঃখে ভরা। দুই ছেলেকে আল্লাহ ক্যান্সার রোগে নিয়ে গেছে। এক ছেলে বেঁচে আছে, তবে সে (পঙ্গু)। আলমগীর ছেলেটা পাশে দাঁড়িয়ে আমাদের চিন্তামুক্ত করেছে। আমি নামাজ পড়ে তার জন্য দোয়া করবো।’

আলমগীর হোসেন বলেন, ‘দায়বদ্ধতার জায়গা থেকে অসহায় পরিবারটির পাশে দাঁড়িয়েছি। রাজনীতি করি মানুষের কল্যাণে। আমি মনে করি এটা আমার নৈতিক দায়িত্ব।’