ই-পেপার ফটোগ্যালারি আর্কাইভ বুধবার, ২৭ অক্টোবর , ২০২১ ● ১১ কার্তিক ১৪২৮

পানি টেনেই জীবিকা নির্বাহ!

Published : Thursday 15-July-2021 22:28:36 pm
এখন সময়: বুধবার, ২৭ অক্টোবর , ২০২১ ০৫:৫৫:২৯ am

আব্দুল মতিন, মণিরামপুর: ভ্যান চালিয়ে হোটেল চায়ের দোকানে পানি দিয়েই জীবিকা নির্বাহ করে চলেছেন সীতা বিশ্বাস (৫২) নামের এক নারী। তিনি ২৫ বছর এভাবেই পানি টেনে সংসারের ঘানি টানছেন। কিন্তু আজও জোটেনি ভিজিডি কিংবা ভিজিএফসহ সরকারি সুবিধা।

সীতা বিশ্বাস মণিরামপুর পৌরশহরের ভগবান পাড়ায় বসবাস করেন। সীতার পার্শ্ববর্তী কেশবপুর উপজেলার বড়ডাঙ্গা গ্রামের সুনীল বিশ্বাসের সাথে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। স্বামী দ্বিতীয় বিয়ে করায় ২৫ বছর আগে তিন সন্তানকে নিয়ে স্বামীর সংসার ছেড়ে পিতৃালয়ে চলে আসেন।

সীতা বিশ্বাস জানান, বিয়ের পর দুই মেয়ে এবং এক পুত্র সন্তান জন্মের পর স্বামী দ্বিতীয় বিয়ে করায় বাবার সংসারে চলে আসেন। কিন্তু বাবাও ছিলেন দরিদ্র। তাই তিন সন্তানের মুখে দু’বেলা দু’মুঠো অন্ন জোগাতে জীবন সংগ্রামে নেমে পড়েন। প্রথম অবস্থায় গৃহস্থ পরিবারের ঝিয়ের কাজ করলেও সন্তানদের মুখে খাবার তুলে দেয়া কষ্ট সাধ্য হয়ে পড়তো। এক পর্যায় বাজারে হোটেল আর চায়ের দোকানে কলসে করে পানি দেয়ার কাজ শুরু করেন। প্রতি কলস পানি দেয়া বাবদ ২ টাকা পারিশ্রমিক পেতেন। সেই থেকে আজও রোদ-বৃষ্টি উপেক্ষা করে এই কাজ করে চলেছেন সীতা।

তিনি আরও জানান, বছর দু’য়েক আগে পড়ে গিয়ে পায়ে আঘাত পেয়ে পানি দেয়ার কাজে ছেদ ঘটে। পরে প্রতিবেশীর কাছ থেকে টাকা ধার নিয়ে দুই হাজার টাকায় একটি ভ্যান এবং তিন হাজার টাকায় ৮ ঘড়া (কলস) কিনে ভ্যান চালিয়ে পানি সরবরাহ শুরু করেন। সীতা বিশ্বাস দুঃখ করে বলেন, স্বামী থেকেও নেই, তাই বিধবা ভাতা পান না। শ্বশুর বাড়ি কেশবপুর হওয়ায় তিনি ভিজিডি-ভিজিএফ সহায়তা বঞ্চিত। তবে, এবার তাদের ওয়ার্ড কাউন্সিলর ৫শ’ টাকা এবং চাল দিয়েছেন।

 



আরও খবর