ই-পেপার ফটোগ্যালারি আর্কাইভ শুক্রবার, ২২ অক্টোবর , ২০২১ ● ৭ কার্তিক ১৪২৮

পাইকগাছায় নদের সরকারি জমি দখলের মহোৎসব

Published : Wednesday 07-July-2021 21:49:49 pm
এখন সময়: শুক্রবার, ২২ অক্টোবর , ২০২১ ০৮:৪৬:৩১ am

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি: পাইকগাছায় কপোতাক্ষ নদ ও শিবসা নদীর চরভরাটি জমি দখলের মহোৎসব শুরু হয়েছে। স্থানীয় প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে প্রভাবশালীরা কপোতাক্ষ নদের চর ভরাটি জমি দখল নিচ্ছে।

সরেজমিনে দেখা যায় কপোতাক্ষ নদে হিতামপুর মৌজার অংশে চরভরাটি জমির দখল প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। এ ঘটনায় উপজেলা প্রশাসনে নিকট বিভিন্ন ব্যক্তির পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ করা হলে প্রশাসন চর ভরাটী সরকারি সম্পত্তি সীমানা নির্ধারণ করে লাল ফ্লাগ লাগিয়ে দিয়েছেন।

সরকার দলীয় প্রভাবশালী নেতাদের নাম ব্যবহার করে দখলদাররা নদীর চরভরাটি এসব জমি দখল করে বাঁধ নির্মাণ শুরু করেছে। ইতোমধ্যে গত ৪ জুলাই উপজেলা সদরে শিবসা নদীর চরভরাটি জমিতে বাঁধের কাজ শুরু করেন, উপজেলার লস্করের কড়ুলিয়া এলাকার এক ব্যক্তি। এর আগে কপোতাক্ষ নদের পাইকগাছার গদাইপুরের হিতামপুর এলাকায় চরভরাটি প্রায় ৩০ থেকে ৩৫ বিঘা জমিতে বাঁধ দিয়ে দখল প্রক্রিয়া শুরু করেন আরএক প্রভাবশালী। দখলদাররা সেখানকার ১ নং খাস খতিয়ানের ৯৫১ দাগের বোয়ালিয়া এলাকার চরভরাটি প্রায় ৩০/৩৫ বিঘা জমিতে অবৈধভাবে বাঁধ দিয়ে দখলে নিয়েছে।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, পাইকগাছা সদরের শিবসা চরভরাটি জমিতে দু’দফায় কাজ বন্ধ করে দিয়েছেন, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো: শাহরিয়ার হক।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিষয়টি উপজেলা সার্ভেয়ার ও কানুনগোকে সরেজমিনে তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন দাখিলের কথা বলেন।

গত ৪ জুলাই রবিবার সকাল ১০ টার দিকে উপজেলা সার্ভেয়ার ও কানুনগো ঘটনাস্থলে গিয়ে গিয়ে অভিযোগের সত্যতা পান। এ সময় তারা জনৈক ইয়ামিন নামে একজনকে ভূমি অফিসে নিয়ে যান।

এ বিষয়ে কানুনগো বলেন, এসিল্যান্ড স্যারের নির্দেশে তিনি তাকে ডেকে নিয়েছিলেন এবং তার নির্দেশেই তাকে ছেড়ে দিয়েছেন। এরপর গত ৫ জুলাই দখলদাররা ফের সেখানে বাঁধের কাজ চলমান রেখেছেন।

এব্যাপারে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) শারিয়ার হক বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি, মঙ্গলবার আমাদের লোক সেখানে গিয়ে সরকারি সম্পত্তির সীমানা জরিপপূর্বক সরকারের দখলে নিয়ে নিবেন। এছাড়া আরো যারা সরকারি সম্পত্তির অবৈধ দখল নিয়েছেন আবহাওয়ার অনুকূল পরিবেশ হলে তাদেরকেও পর্যায়ক্রমে উচ্ছেদপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবিএম খালিদ হোসেন সিদ্দিকী বলেন, নদী হলো আমাদের প্রান, অবশ্যই নদী রক্ষার সার্থে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। নদীর চরভরাটি জমি সরকারের। তা রক্ষা করার দায়িত্ব অবশ্যই প্রশাসনের, আমরা দ্রুতই ব্যবস্থা নেব।



সর্বশেষ সংবাদ
আরও খবর