ই-পেপার ফটোগ্যালারি আর্কাইভ শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর , ২০২১ ● ২ আশ্বিন ১৪২৮

খানা খন্দে রূপ নিয়েছে চুকনগর- নওয়াপাড়া ভায়া কলাগাছি সড়ক

Published : Tuesday 14-September-2021 20:56:11 pm
এখন সময়: শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর , ২০২১ ১৩:৩২:০৯ pm

শেখ আব্দুস সালাম, চুকনগর : বেহাল দশায় পরিণত হয়েছে চুকনগর-নওয়াপাড়া ভায়া কলাগাছি সড়ক। দীর্ঘদিন সংস্কারের অভাবে ৩০ কিলোমিটার সড়কের বেশিরভাগ জায়গায় সৃষ্টি হয়েছে ছোট-বড় গর্ত। বর্তমানে বৃষ্টির পানি জমে ওই গর্ত গুলো খানা-খন্দকে রুপ নিয়েছে। ফলে এ সড়কে যানবাহনের চাকা আটকা পড়ে প্রায় ঘটছে দুর্ঘটনা। এছাড়া চরম ভোগান্তিতে পড়েছে এলাকায় জনসাধারণ।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ডুমুরিয়ার সিমান্ত চুকনগর ব্রিজের উত্তর প্রান্তে যশোর জেলার কেশবপুর, অভয়নগর ও মণিরামপুর উপজেলার মধ্যে দিয়ে এ সড়কটি অবস্থিত। কিন্তু দীর্ঘদিন সড়কটি সংস্কারের অভাবে সড়কের বিভিন্ন স্থানে ছোট বড় গর্তের সৃষ্টি হয়ে খানা খন্দকে রূপ নিয়েছে। আর সৃষ্ট হওয়া খানা-খন্দকের মধ্যে পড়ে প্রতিনিয়ত ঘটছে ছোট-বড় দূর্ঘটনা। যানবাহসহ সাধারণ মানুষ ঝুকি নিয়ে যাতায়াত করছেন এ সড়ক দিয়ে। দীর্ঘদিন বেহাল অবস্থার সৃষ্টি হলেও  দেখার কেউ নেই! এমন অভিযোগ রয়েছে স্থানীয়দের।

সরেজমিনে দেখাগেছে, যশোর জেলার কেশবপুর, অভয়নগর ও মণিরামপুর উপজেলার আন্তঃসড়ক হিসেবে ব্যবহৃত হয় এটি। চুকনগর ব্রিজের উত্তর প্রান্ত থেকে শিল্প নগরী নওয়াপাড়া পর্যন্ত প্রায় ৩০ কিলোমিটার এ সড়কের দৈর্ঘ্য। এর মধ্যে গৌরিঘোনা ইউনিয়নের সন্যাস -কলাগাছি পর্যন্ত এবং কালিবাড়ি থেকে নওয়াপাড়া প্রায় ১৮ কিলোমিটার সড়কের বিভিন্ন স্থানে বিটুমিন ইট খোয়া পাথর উঠে গিয়ে ছোট-বড় গর্তের সৃষ্টি হয়ে খানা খন্দকে পরিণত হয়েছে। এ সড়ক দিয়ে অবিরাম বিভিন্ন ধরনের যানবহন, জরুরি সেবা, পণ্য পরিবহন, ট্রাক, পিকআপ, মাইক্রোবাস, প্রাইভেটকার, ইজিবাইক ভ্যান,মোটরসাইকেলসহ হাজার হাজার যানবহন, পথচারী, স্কুল কলেজগামী শিক্ষার্থী যাতায়াত করে। এছাড়া সড়কের দুপাশে রয়েছে অন্ততঃ ৩৫/৪০ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ২০ টি অধিক ছোট-বড় হাটবাজার, ইউনিয়ন পরিষদ, ৩/৪ পুলিশ ফাঁড়িসহ একাধিক ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান। তাছাড়া এ জনপদের কৃষকের উৎপাদিত ফসল সবজি,ধান ও মাছ বাজারজাতসহ যাতায়াতের একমাত্র মাধ্যম হিসেবে এ সড়কটি ব্যবহার হয়ে থাকে। ফলে সড়কটি ব্যস্ততম ও যথেষ্ট গুরুত্ব বহন করে। ভুক্তভোগী ওই সড়কে যানবহন চালক, পথচারীসহ এলাকাবাসী ঝুকিপূর্ণ বেহাল সড়কটি দ্রুত পুনসংঙ্কারের জন্য সংশ্লিষ্ট ঊধ্বর্তন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি কামনা করছেন।

কেশবপুর উপজেলা স্থানীয় সরকার প্রকৌশল দপ্তরের সাব এসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার মনিরুল ইসলাম জানান, সড়কটি পুনসংস্কারের লক্ষ্যে ১০ কোটি টাকা বরাদ্দ হয়েছে। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান সন্যাসগাছা হতে উপজেলার কলাগাছি বাজার পর্যন্ত সড়কের সংস্কার কার্যক্রম শুরু করেছে।



আরও খবর