ই-পেপার ফটোগ্যালারি আর্কাইভ শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর , ২০২১ ● ২ আশ্বিন ১৪২৮

উপশহরে উদ্ধার হওয়া নবজাতকের পিতা আটক আকরাম, স্বীকারোক্তি

Published : Tuesday 27-July-2021 22:15:15 pm
এখন সময়: শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর , ২০২১ ১২:১১:২৮ pm

নিজস্ব প্রতিবেদক : যশোর উপশহরে উদ্ধার হওয়া নবজাতকটি এক কিশোরীকে ধর্ষণের ফসল। এ ঘটনায় আকরাম হোসেন নামে এক যুবককে আটক করে পুলিশ। মঙ্গলবার আটক আকরামকে আদালতে সোপর্দ করা হলে সে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। সে জানিয়েছে, নবজাতক ওই সন্তানের পিতা সে। মঙ্গলবার জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মাহাদী হাসান এ জবানবন্দি গ্রহণ শেষে আসামিকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন। আকরাম হোসেন বাঘারপাড়ার ছোট খুদরা গ্রামের নূর ইসলামের ছেলে। এ দিন ওই কিশোরীর জবানবন্দি গ্রহণ করেছেন বিচারক।

আকরাম হোসেন জানিয়েছে, ওই কিশোরীর সাথে তার প্রেম ছিল। তার সাথে দৈহিক মেলামেশায় ওই কিশোরীর গর্ভে সন্তান এসেছে। এ সন্তানের পিতা সে। তাকে মুক্তি দেয়ার পরে ওই কিশোরীকে স্ত্রী ও নবজাতককে নিজের সন্তান হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে বাড়িতে নিবে বলে জানিয়েছে আকরাম ।

মামলার অভিযোগে জানা গেছে, ওই কিশোরীর বাড়ি বাঘারপাড়ার ছোট খুদরা গ্রামে। বর্তমানে তিনি পরিবারের সাথে যশোর উপশহর ৮ নম্বর সেক্টরের কলাবাগান এলাকায় স্থায়ীভাবে বসবাস করেন। আসামি আকরাম হোসেন তাদের প্রতিবেশি। সেই সূত্রে তাদের মধ্যে পরিচয়। মাঝে মধ্যে আকরাম তাদের বাড়িতে আসা যাওয়া করতো। ২০২০ সালের ৫ নভেম্বর আকরাম হোসেন তাদের বাসায় এসে রাত যাপন করে। আবার পরদিন সকালে চলে যায়। কিন্তু ওইদিন রাতে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ওই কিশোরীকে ধর্ষণ করে আকরাম। ফলে কিশোরী গর্ভবতী হয়ে পড়ে। বিষয়টি লোক লজ্জার ভয়ে এবং ঘৃণায় কাউকে না বলে গোপন রাখে। সম্প্রতি বাদীর মেয়ে শারীরিকভাবে অসুস্থ হয়ে পড়লে মেয়ের কাছ থেকে বিষয়টি জানতে পারে তার পরিবার। এরপর বিষয়টি নিয়ে আকরাম হোসেন ও তার পরিবারের সাথে যোগাযোগ করা হয়। কিন্তু আকরামের পরিবার কোন গুরুত্ব না দিয়ে বরং কিশোরীর পরিবারকে বিভিন্ন ধরনের হুমকি দিতে থাকে। এরই মধ্যে গত ২৬ জুলাই রাত পৌনে ১১টার দিকে কিশোরী একটি পুত্র সন্তান হয়। এরপর কিশোরীর পিতা এই ঘটনাটি জাতীয় সেবা ৯৯৯ নম্বরে ফোন করেন। পরে থানা পুলিশ এসে ঘটনা শুনে কিশোরীর পিতাকে সাথে নিয়ে বাঘারপাড়ার ছোট খুদরা গ্রামে অভিযান চালিয়ে আকরাম হোসেনকে আটক করে।

এ ব্যাপারে কোতয়ালি থানায় মামলা করেন কিশোরীর পিতা। আসামি করা হয় আকরাম হোসেনকে। মঙ্গলবার আটক আকরাম হোসেনকে আদালতে সোপর্দ করা হয়। আকরাম ঘটনার সাথে জড়িত থাকার স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে।



আরও খবর